1. bpdemon@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
  2. ratulmizan085@gmail.com : Daily Kaljoyi : Daily Kaljoyi
রংপুরে ১৯ বছরেও শেষ হয়নি বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যার বিচার
বাংলাদেশ । শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ।। ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
ব্রেকিং নিউজ
কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ মডেল থানা এলাকা হতে ৩৫ কেজি গাঁজা’সহ ০২জন মাদক কারবারি গ্রেফতার। তাড়াশে নিজের অন্ডকোষ নিজেই কাটলেন চাঁদপুর হিলশা সিটি রোটারী ক্লাবের দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠিত ভোলা যুব ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি (বিডিএস) সামাজিক সংগঠনের ৭ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত দীর্ঘ ৭ বছর পর সিংগাইর উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন। সভাপতি মমতাজ বেগম এমপি,সম্পাদক ভিপি শহিদ চাঁদপুরে কিশোর গ্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে ২০ দিন ধরে হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে যুবক ব্রাহ্মণপাড়ায় দুই মাদক কারবারিসহ গ্রেফতার ৩ মাধবপুরে সমাজসেবা অনুদান তুলে দেন, প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী রূপগঞ্জে জাতীয় সাহিত্য সম্মেলন রূপগঞ্জে মাসোহারা দিতে দেরি হওয়ায় নির্যাতন, এএসআই ক্লোজড

রংপুরে ১৯ বছরেও শেষ হয়নি বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যার বিচার

মোতাহার হোসেন :
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২
  • ২০৮ বার পড়েছে

বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলার বিচার কাজ ১৯ বছরেও শেষ হয়নি। ইতোমধ্যে মামলার বাদি নিহত বীর মুক্তিযোদ্ধার বাবা ও চার্জসিটভুক্ত ৫ আসামী মামলা চলাকালিন সময়ে মারা গেছেন। নিহতের সন্তানরা অপেক্ষা করছেন ন্যায় বিচার দেখার। ঘটনাটি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার।

মামলা ও আদালতের পিপি শাহ মোঃ নয়ন্নুর রহমান সূত্রে জানাগেছে, ২০০৩ সালের ৫ নভেম্বর রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর এলাকার আবুল কাসেম সর্দ্দারের ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান ওরফে লুতু (৫৬) তার ছোট ভাইকে নিয়ে নিজ দখলীয় রুহিয়ার বিল দেখতে যান। এসময় প্রতিপক্ষ মোঃ মোন্নাফ গং বিলে লাল নিশান লাগিয়ে বিলের দখল নিতে চেষ্টা করেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান লুতু ও তার ভাই এতে বাধা দিলে প্রতিপক্ষরা তাদের লাঠি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর রহমান লুতু মারা যান। এ ঘটনায় ওই রাতে নিহতের বাবা আবুল কাসেম সর্দ্দার বাদি হয়ে মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ২০০৪ সালের ২০ ডিসেম্বর মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা ২৩ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জসিট দাখিল করেন।

মামলা চলাকালীন অবস্থায় ২০১৭ সালে মামলার বাদি নিহতের পিতা মারা যান। এদিকে ২৩ জন আসামীর মধ্যে ৫ জন বিভিন্ন সময়ে মারা যান। বর্তমানে এই মামলায় ১৮ জন আসামী জামিনে রয়েছেন। নিহতের ছেলে মুকুল মিয়া বলেন, আমার দাদা তার ছেলে হত্যার বিচার দেখে যেতে পারেনি। আমরা আমাদের বাবার হত্যার ন্যায় বিচার দেখার আশায় রয়েছি। সরকার পক্ষের পিপি শাহ মোঃ নয়ন্নুর রহমান বলেন, জেলা দায়রা জজ আদালতে মামলাটি বর্তমানে যুক্তিতর্কের পর্যায়ে রয়েছে। এরপরে রায় ঘোষণা করা হবে। আসামীপক্ষ বার বার সময়ের আবেদন করায় মামলার বিচার কাজ বিলম্ব হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
প্রকাশক কর্তৃক জেম প্রিন্টিং এন্ড পাবলিকেশন্স, ৩৭৪/৩ ঝাউতলা থেকে প্রকাশিত এবং মুদ্রিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Hi-Tech IT BD