১ জানুয়ারী যেভাবে হলো নববর্ষ

54

শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী শিপন: বিগত কয়েক যুগ ধরে আমরা ১ জানুয়ারিকে ইংরেজি নববর্ষের প্রথমদিন হিসেবে উদযাপন করে আসছি। কিন্ত আসলেই কি তা ইংরেজি নববর্ষ ? নাকি অন্য কোনো ক্যালেন্ডারের নববর্ষ ? হ্যা আসলেই এটি ভিন্ন আরেকটি ক্যালেন্ডারের নববর্ষ ।

খ্রিষ্টীয় নববর্ষ হিসেবে ১ জানুয়ারীকে উদযাপনের সংস্কৃতি শুরু হয় কয়েকশ বছর আগে। তবে এটি শুরু হবার পেছনে লুকিয়ে আছে বিরাট ইতিহাস। সর্বপ্রথম নববর্ষ উদযাপন শুরু হয় খ্রিষ্টের জন্মেরও দুই হাজার বছর আগে। সে সময় ১ মার্চকে নববর্ষের প্রথমদিন হিসেবে উদযাপন করা হতো। কারন রোমান দিনপঞ্জিকা অনুযায়ী প্রতিবছর ১ মার্চ ছিল নববর্ষের প্রথম দিন। ওই সময় বছর গননা করা হতো ১০ মাস। মার্চ থেকে শুরু হতো নতুন বছর। আর দিনপঞ্জিকায় জানুয়ারী অন্তভুক্তি হয় খ্রিষ্টের জন্মের ১৫৩ বছর আগে। তখন রোমে প্রথমবারের মতো ১ জানুয়ারীতে নববর্ষ উদযাপন শুরু হয়। রোমের দ্বিতীয় রাজা নুমা পন্টিলাস দিনপঞ্জিকায় অন্তভুক্ত করেন নতুন দুটি মাস জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী। যদিও তখনও মার্চ মাসেই নববর্ষ উদযাপন হতো। খ্রিষ্টের জন্মের ৪৬ বছর আগে জুলিয়াস সিজার প্রচীন রোমান দিনপঞ্জিকায় একটি বড়ধরনের পরিবর্তন এনে নতুন পঞ্জিকা চালু করেন। এই দিন পঞ্জিকায় ১ জানুয়ারীকে বছরের প্রথম দিন হিসেবে ঘোষনা করা হয়। সেই থেকে বছরের প্রথম দিন হিসেবে ১ জানুয়ারী নববর্ষ উদযাপন শুরু হয়। মধ্যযুগীয় সময়ের ৫৬৭ খ্রিষ্টাব্দে এসে ইউরোপের বিভিন্ন অঞ্চলে ১ জানুযারীকে নববর্ষ প্রথম দিন থেকে বাদ দেওয়া হয়। এরপরও বিভিন্ন জায়গায় নানা সময়ে নববর্ষ উদযাপন শুরু হয়। এ সময় ইউরোপের কোথাও ২৫ ডিসেম্বর ,কোথাও ১ মার্চ আবার কোথাও ২৫ মার্চ নববর্ষ উদযাপন করো হতো। তবে ১৫৮২ সালে গ্রেগারিয়ানর দিনটঞ্জিকা অনুযায়ী ১ জানুয়ারীকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে পালন করা হয়। এরপর ১ জানুয়ারী নববর্ষ হিসেবে আস্তে আস্তে জনপ্রিয় হতে থাকে। ১৭৫২ সাল থেকে আমেরিকা ও ব্রিটেনে ১ জানুয়ারীতে নববর্ষ পালন করা শুরু হয়। তবে এটি কোনো ইংরেজি নববর্ষ নয় , কারন যেহেতেু ব্রিটিশরা পার্লামেন্টে আইন পাস করে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারকেই নিজেদের ক্যালেন্ডার হিসেবে গ্রহন করে ,তাই এই ক্যালেন্ডারকে কোনোমতেই ইংরেজি ক্যালেন্ডার বলা যাবে না । পরবর্তী সময়ে আন্তর্জাতিকভাবে বহু দেশে গৃহীত হওয়ার ফলে এর গুরুত্ব ,মর্যাদা ও ব্যপ্তি বাড়তে থাকে। তবে এটি মূলত রোমান বা গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার।এটি ইংরেজি ক্যালেন্ডার বা প্রথম দিনকে ইংরেজি নববর্ষ বলা সমীচীন নয়। তাই আজ মূলত রোমান ক্যালেন্ডারের নববর্ষ বা আন্তর্জাতিক নববর্ষ।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের মধ্যে নববর্ষ নিয়ে অনেক সংস্কার রয়েছে। যদিও এসব ধারণার আসলে কোনো বাস্তবতা নেই,তথাপি এসব অযৌক্তিক ধারণা মানুষ যুগ যুগ ধরে তা মেনে আসছে । যেমন বছরের প্রথম দিন ভালো কাজ করলে বা ভালো খাবার খেতে পারলে বা গোলাকার খাদ্য ভাগ্যর প্রতিক মনে করে তাহলে সারা বছর অনুরূপ ভাবে তা পালন করা যাবে। অনেকে বন্ধু বান্ধব আত্মীয় স্বজনদের সান্নিধ্যেয় কাটায় ,অনেকে মিস্টিমুখ করায় ,আবার কেহ যদি কালো চুলে লম্বা মানুষের দেখা পায় তাহলে তার জন্য ভালো বার্তা অপেক্ষা করছে ইত্যাদি।

নতুন বছরের শুরুতে আমাদের কামনা হোক, ধীরে ধীরে সকল অনাচার ¯ি’মিত হয়ে আসুক। প্রাকৃতিক ও মানব সৃষ্ট বিপর্যয় হতে মানব সমাজের স্থায়ী রক্ষা কবচ নির্মিত হোক। আগামী পৃথিবী অনাহত শিশুর জন্য সুন্দর বাসযোগ্য হয়ে উঠুক ।

আমাদের দেশ তথা সারা বিশ্বের মাটিতে নাই ঘটুক কোনো সংঘাত যুদ্ধ বিগ্রহ কিংবা প্রাকৃতিক দূর্যোগ নামক মরণ থাবা । সব জাতি বর্ণ গোষ্ঠীর প্রতি সুখময় হয়ে উঠুক এমনটই কামনা হোক আমাদের অন্তরের বাণী ।