ঝিনাইদহে পূর্ব শত্রুতার জেরে বাড়িঘরে হামলা : আহত ৪

83

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঝিনাইদহে গোপিনাথপুরে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে দুর্বৃত্তরা। গত রবিবার দুপুরে জেলার গোপিনাথপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হামলাকারীরা বাড়িঘর ভাংচুর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং তাদের হামলায় মহিলাসহ অন্তত ৪ জন আহত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গোপিনাথপুর গ্রামের হাসান আলীর নেতৃত্বে তার ছেলে পিন্টু, ঝন্টু, মিলন এবং রেনু খাতুন, যুথী খাতুন, রবিউলসহ প্রায় ১০/১২ জন লোক রামদা, সোল দা, হাসুয় লোহার রড়- হাতকুড়ালসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একই গ্রামের প্রতিপক্ষ ফজলুর রহমান এর বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাদের ঘর-বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ সময় তাদের বাধা দিতে গিয়ে ফজলুর রহমানসহ তার তিন কন্যা গুরুতর আহত হন।

এ বিষয়ে ফজলুর রহমান ও তার স্ত্রী জানান, ২৪/১১/২০১৯ইং তারিখে দুপুর বেলা উক্ত লোজ জন আমার বসত বাড়িতে জোর পূর্বক ঢুকে আমাকে গালি গালাজ করতে থাকে আমি নিষেধ করলে হাসান আলী ও অন্যানোরা লোহার রড ও লাঠি দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়িভাবে পিটাতে থাকে। তখন আমার বাড়িতে আমার তিন মেয়ে আমাকে বাচাতে গেলে হাসান আলীর গুন্ডাপান্ডা ছেলেরা আমার মেয়েদের উপর রামদা, সোল দা, হাসুয় লোহার রড় দিয়ে হামলা করে রক্তাক্ত করে তাদের গলায় থাকা সর্ণের চেইন, কানের দুল এবং ঘরে থাক নগত ১৩০০০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

পরে আমাদের চিৎকার চেচামেচির কারণে আশে পাশের লোক জন পুশিলকে খবর দিলে পুলিশ আমার তিন মেয়েকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আমার মেঝ মেয়ে ফেফালির শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার কর্মরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বিষয়টি সঠিক বিচারের দাবিতে আমি বাদি হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় হাজির হেয় একটি মামলা দায়ের করি যার মামলা নং ৬০ তারিখ ২৫/১১/১৯ইং। কিন্তু থানায় মামলা করার ফলে উক্ত আসামির লোক জন আমার বাড়িতে এসে বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে আচ্ছে।