দুমকিতে দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ

489

সোহাগ হোসেন: পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলা দ্বিতীয় শ্রেনীর এক ছাত্রী ধর্ষণ। আফিফা আক্তার (১২), গত বুধবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। আফিফা আক্তার, পিতা: এনামুল হক কারিকর বাড়ি দুমকি উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের ০৮ নং ওয়ার্ডে কারিকর বাড়ি। আফিফা আক্তার ৫৩ নং পশ্চিম জলিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেনীর শিক্ষার্থী।

সরেজমিনে গিয়ে আফিফার সাথে কথা বলে জানাযায়, তার প্রতিবেশী সম্পর্ক দাদা মো. ফোরক কারিকর (৬০), সেলম গাজী (৬৬) এই দুজন তাকে ধর্ষণ করে। সে সন্ধার পর পারিবারিক কিছু কাজের জন্য রাস্তার সামনে যায় তখন তাকে ঐ দুই জন ডেকে নিয়ে যায় এবং ধর্ষণ করে। এর আগের ও তাকে অনেক বিরক্ত করত বলে আফিফা জানায়। এই আফিফার মাতা মৃত তিনি তার দাদীর কাছেই বড় হচ্ছে আফিফা দুই বোন এক ভাই তার বড় বোন এই ধর্ষকের কঠিন শাস্তি দাবি করে।

মো. ফোরক কারিকর (৬০) এর সাথে কথা বলতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি তারা দুইজন ঘটনার দিন থেকে লাপাত্তা। তবে ফোরক কারিকর এর স্ত্রী ও মেয়ে এ ঘটনার অস্বীকার করে। তিনি আরও বলেন তাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে এগুলো সব মিথ্যা বানোয়াট।

এ দিকে অফিফার পরিবারকে কোন প্রকার প্রচারনা বা মামলা দিতে নিষেধ করেছে মো. ফোরক কারিকরের কন্যা বিউটি বেগম (৪০)। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ব্যস্থ সমাজের কিছু কুচক্রমল। ঘটনার পর ০৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার তার পরিবারকে দেখতে যায় এবং বিচারের আস্বাস দেন।