রাজীব-দিয়ার নিহতের ঘটনায় দুই চালকসহ ৩ জনের যাবৎজীবন

40

কালজয়ী ডেস্ক: ২০১৮ সালের ২০১৯ জুলাই রাজধানীতে দুই চালকের রেষারেষিতে বাসচাপাঁয় দুই শিক্ষার্থী রাজীব ও দিয়া নিহতের ঘটনার মামলার রায়ে জাবালে নূর পরিবহনের দুই চালকসহ ৩ জনের যাবৎজীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ (১ ডিসেম্বর) রবিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ রায় দেন। ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাসচাপাঁয় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী আব্দুল করিম রাজীব ও দিয়া খাতুন মীম নিহত হয়।

আজ রোববার মামলার রায়ে আদালত বাসের চালক মাসুম বিল্লাহ, জুবায়ের সুমন ও হেলপার কাজী আসাদকে (পলাতক) যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দেন। এছাড়া বাকি দুই আসামি হেলপার এনায়েত হোসেন এবং বাস মালিক জাহাঙ্গীর আলম খালাস পেয়েছেন। রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছেন, দুই বাসের রেষারেষিতে দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে।

রায় ঘোষণার আগে জাবালে নূর পরিবহনের মালিক জাহাঙ্গীর আলম, দুই চালক মাসুম বিল্লাহ ও জুবায়ের হোসেনকে আদালতে হাজির করানো হয়।

২০১৮ সালের ২৯ জুলাই কালশী ফ্লাইওভার থেকে নামার মুখে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে ১৫/২০ জন শিক্ষার্থী দাড়িঁয়ে ছিলেন। ঠিক তখনই জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস ফ্লাইওভার থেকে নেমে এসে সেখানে দাড়াঁয়। এ সময় পেছন থেকে জাবালে নূরের আরেকটি বাস দ্রুতগতিতে ওভারটেক করে সামনে আসতেই নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলে এতে পিষ্ট হয়ে মারা যায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী আব্দুল করিম রাজীব ও দিয়া খাতুন মীম। এই ঘটনায় ক্যান্টনম্যান্ট থানায় একটি মামলা করেন দূর্ঘটনায় নিহত দিয়ার বাবা জাহাঙ্গীর আলম।

এর পর থেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজধানীসহ সারাদেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারন শিক্ষার্থীরা। ঢাকা শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলো অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা।