মুরাদনগরে প্রাথমিক শিক্ষায় কৃতিত্ব ও বিশেষ অবদান রাখায় শ্রেষ্ঠদের নির্বাচন

57
স্টাফ রিপোটার্সঃ জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক-২০১৯ প্রদান উপলক্ষে কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলায় ১০টি ক্যাটাগরিতে প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রে কৃতিত্ব ও বিশেষ অবদানে রাখার জন্য শ্রেষ্ঠদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে নির্বাচিতদের তালিকা উপজেলা শিক্ষা অফিস প্রকাশ করে।
উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটির সভায় নির্বাচিতরা হলেন, শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে বাঙ্গরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (পুরুষ) মো: জামাল উদ্দিন ও (মহিলা) রহিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেবেকা সুলতানা, শ্রেষ্ঠ সহকারি শিক্ষিক (পুরুষ) দেীলতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জাকির হোসেন ও (মহিলা) মুরাদনগর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মোসাম্মৎ ফাতিমা খাতুন, শ্রেষ্ঠ স্কুল হিসেবে টনকী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শ্রেষ্ঠ এস.এম.সি হিসেবে ভবানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আরিফুল ইসলাম শাহেদ, শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎসাহী সমাজ কর্মী হিসেবে হায়দারাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সিরাজুল ইসলাম, শ্রেষ্ঠ কাব শিক্ষক হিসেবে দিলালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শারমীন ফাতেমা, শ্রেষ্ঠ উপজেলা শিক্ষা অফিসার হিসেবে সায়মা সাবরিন, শ্রেষ্ঠ কর্মচারী হিসেবে উপজেলা শিক্ষা অফিসের উচ্চমান সহকারি আবু তাহের।
শ্রেষ্ঠ শিক্ষক শিক্ষিকাসহ সকল ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন কারিদের অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির উপজেলা শাখা। এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষক পরিবার, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাদের আন্তরিকভাবে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।
মুরাদনগর উপজেলা শিক্ষা অফিসার ফওজিয়া আক্তার বলেন, নির্বাাচিত সকলেই প্রাথমিক শিক্ষায় দক্ষ লোক হিসেবে পরিচিতি রয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে তাদের উপস্থিতি প্রসংশনীয়।
মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রাথমিক শিক্ষা পদক বাছাই কমিটির সভাপতি অভিষেক দাশ বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে উপজেলা পর্যায়ে ১০টি ক্যাটাগরিতে সেরাদের পদক প্রদানের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। পদকের জন্য মনোনীত হওয়ার হতে যেসব দক্ষতা দরকার সেগুলো সঠিক ভাবে যাচাই বাছাই করে এবং ভাইভা নিয়ে মনোনয়ন সম্পন্ন করা হয়েছে। এই পদক প্রদান প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।