কুবিতে সমাবর্তনের নিবন্ধনকার্য শেষ হচ্ছে আজ

58

কুবি প্রতিনিধি: আগামী বছরের ২৭ জানুয়ারি অভিষেক সমাবর্তনের আয়োজন করতে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি)। প্রথম সমাবর্তনে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হচ্ছে আজ শনিবার (৩০ নভেম্বর) রাত ১২ টায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রায় দুই সহস্রাধিক গ্র্যাজুয়েট নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন বলে জানিয়েছে সমাবর্তন প্রস্তুতি কমিটি।

এদিকে নির্ধারিত সময় শেষে নতুন করে সমাবর্তনের সময় বাড়ানোর কোনো সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে সমাবর্তন প্রস্তুতি কমিটি। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ও সমাবর্তন আয়োজন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. মো: আবু তাহের বলেন ‘সমাবর্তনে নিবন্ধনের সময়সীমা বৃদ্ধির সম্ভাবনা নেই, পূর্ব নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই নিবন্ধন সম্পূর্ণ করতে হবে।’

তবে সমাবর্তনে নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়ানো হবে কিনা তা জানতে অপেক্ষা করতে রবিবার (০১ ডিসেম্বর) পর্যন্ত। এদিন সংশ্লিষ্ট কমিটির সভায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সমাবর্তনের রেজিস্ট্রেশন উপ-কমিটির আহবায়ক ড. সজল চন্দ্র মজুমদার জানিয়েছেন, ‘শুক্রবার রাত ১০টা পর্যন্ত চূড়ান্ত নিবন্ধনের সংখ্যা ২১০২ জন। শনিবার রাতের মধ্যে আশা করা যাচ্ছে এটা তিন হাজারে পৌঁছাবে। তবে সময়সীমা বাড়ানো হবে কিনা তা কমিটির সভা শেষে রবিবার জানা যাবে।’

২০০৬ সালে দেশের মধ্য-পূর্বাঞ্চলের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়া প্রতিষ্ঠানটিতে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম ব্যাচ (২০০৬-০৭ শিক্ষাবর্ষ) থেকে ৮ম ব্যাচ (২০১৩-১৪) পর্যন্ত স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবেন। একইভাবে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ১ম ব্যাচ থেকে ৬ষ্ঠ ব্যাচ (২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ) পর্যন্ত সাবেক শিক্ষার্থীরা সুযোগ পাচ্ছেন। স্নাতক পর্যায়ের ৩৫৫০ জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ের ২০৫২ জন শিক্ষার্থী সুযোগ পাচ্ছেন কালো গাউন ও টুপি পরিধান করার।

সমাবর্তন আয়োজনের জন্য প্রস্তুতি কমিটির অধীনে ২৪ টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিভিন্ন উপ-কমিটি ক্যাম্পাসের সৌন্দর্যবর্ধন, সমাবর্তনের লোগো চূড়ান্ত করা, বিভিন্ন ভৌত অবকাঠামোগত উন্নয়ণ, গাড়ি পার্কিং নির্মাণের কাজ করছেন। সমাবর্তনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের জন্য এরই মধ্যে উপহার সামগ্রী হিসেবে ব্যাগ, সমাবর্তনের গাউন (ফেরতযোগ্য), ক্যাপ, টাই, মগ, কলম, সুভ্যিনিয়র দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সমাবর্তনস্থলে কোনো গ্র্যাজুয়েট অতিথি নিয়ে প্রবেশ করার অনুমতি পাবেন না।