বুড়িচংয়ে দাদার সাথে অভিমান করে নাতির আত্মহত্যা 

61
বুড়িচং(কুমিল্লা) প্রতিনিধি।। কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর নোয়াপাড়া গ্রামের দাদার সাথে অভিমান করে বাবার মতো নাতি ও বিষ পান করে আত্মহত্যা করেছে। বুধবার দুপুরে কুমিল্লা মহানগরীর মুন হসপিটালে থেকে হাসান(২১) নামের যুবকের লাশ বুড়িচং থানা পুলিশ উদ্ধার করে কুমেকে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরন করে। পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য এবং সূত্র জানায় জেলার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর নোয়াপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মোঃ হাসান (২১) গত ১৭ নভেম্বর তার দাদা খলিলুর রহমান তাকে গালমন্দ বা বকা ঝকা দিলে হাসান অভিমান করে বিষ পান করে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মহানগরীর মুন হসপিটালে ভর্তি করে। তিন দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে গত বুধবার দুপুরে মৃত্যু বরন করেন। এদিকে পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য জানান বিগত ২০ বছর পূর্বে হাসানের পিতা আব্দুর রাজ্জাকে তার দাদা নির্যাতন করে এবং যার ফলে  বিষ পান করে আত্মহত্যা করে। একাধিক সূত্র জানায় হাসানের দাদা খলিলুর রহমান তার পিতা আব্দুর রাজ্জাকে  বিষ পান করিয়ে তিনি হত্যা করেন। বিষয়টি পুলিশের একটি সূত্র স্বীকার করেছেন এবং সূত্র বলে আমাদের নিকট এমন অভিযোগ এসেছে। যার ফলে হাসানের মৃত্যুর পর তার দাদা সহ অনেকে পলাতক রয়েছে। হাসানের পিতার মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিল ৯ মাসের মত। এর পর তার মা অন্যত্র বিয়ে হয়ে আর তার দাদা খলিলুর রহমান এর নিকটে থেকে যায় এবং বড় হয়। স্থানীয় লোকজন জানায় হাসান  লেখাপড়া না করে এলাকার বখাটেদের সঙ্গে চলাচল ছিল। এনিয়ে তার দাদা খলিলুর রহমান গত ১৭ নভেম্বর তাকে বকাঝকা করলে সকালে বিষ পান করে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মহানগরীর মুন হসপিটালে ভর্তি করে। বুধবার বিকালে তার মৃত্যুর খবর পেয়ে বুড়িচং থানার এস আই মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স সহ হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে। স্থানীয় ইউপি সদস্য ওমর ফারুক বলেন ২০ বছর পূর্বে তার বাবা আব্দুর রাজ্জাকের মতো ছেলে হাসান ও বিষ পানে আত্মহত্যা করল। তবে হাসানের দাদা খলিলুর রহমান সুবিধার লোক না। এস আই  মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন  বলেন নাতি হাসানের মৃত্যুর পর তার দাদা সহ অনেকে পলাতক খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এ ঘটনায় বুড়িচং থানায় বুধবার রাতে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।