কুমিল্লা সেনানিবাসে বর্ণাঢ্য আয়োজনে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন

119

কালজয়ী রিপোর্ট: বর্ণাঢ্য আয়োজনে কুমিল্লা সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন করা হয়েছে। সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০১৯ উপলক্ষে ৩৩ পদাতিক ডিভিশন ও কুমিল্লা এরিয়া ২১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লা ময়নামতি সেনানিবাসের ‘এম আর চৌধুরী’ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কুমিল্লা সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী দিবসের অনুষ্ঠানে কুমিল্লা চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী জেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য, মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য, অবসরপ্রাপ্ত সেনা বাহিনীর সদস্য ও তাদের পরিবারবর্গ, কুমিল্লার সামাজিক ও পেশাজীবী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও সেনা বাহিনীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তা ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা সেনানিবাসের এরিয়া কমান্ডার ও ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং জিওসি মেজর জেনারেল আহম্মদ তাবরেজ শামস চৌধুরী। জিওসি মেজর জেনারেল আহম্মদ তাবরেজ শামস চৌধুরী তার বক্তব্যে মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গ করা সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর গৌরবময় কর্মকান্ড তুলে ধরেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জন্ম নেয়া বংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশের উন্নয়ন সমৃদ্ধি ও সকল জনগনের পাশে থেকে কাজ করছে জানান জিওসি মেজর জেনারেল আহম্মদ তাবরেজ শামস চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার (এমপি) ও নিজাম হাজারী (এমপি) সেলিমা আক্তার মেরী (এমপি) আঞ্জম সুলতানা সীমা (এমপি) রৌশন আরা মান্নান (এমপি) সহ অন্যান্য পেশা ও সামাজিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের এইদিনে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী গঠিত হয়। এরপর এই বাহিনী পাকিস্তানী দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অভিযান শুরু করে এবং এতে মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জন ত্বরান্বিত হয়।