১২৩ কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ১১টি কেন্দ্র ঝুঁকিমুক্ত

18

বরিশাল প্রতিনিধি //

আসন্ন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মোট কেন্দ্র সংখ্যা ১২৩টি। যার মধ্যে মাত্র ১১টি কেন্দ্র ঝুঁকিমুক্ত হিসেবে চিহ্নত করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশের নগর বিশেষ শাখা (সিটিএসবি)।বাকি ১১২টি কেন্দ্র ঝুঁকির্পূণ বলে জানিয়েছে বিএমপি।বিষয়টি নিশ্চিত করে মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সহকারী কমিশনার ও নগর পুলিশের মুখপাত্র নাসির উদ্দিন মল্লিক বলেন,গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ সভায় ভোট কেন্দ্রের বিষয় নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে। সেখানে সাধারণ কেন্দ্রের থেকে প্রতিটি গুরুত্বপূর্ন এবং অধিক গুরুত্বপূর্ন কেন্দ্র গুলোতে ২ জন করে আনসার সদস্য বেশি থাকবেন। সে হিসেবে গুরুতপূর্ন ও অধিক গুরুত্বপূর্ন কেন্দ্রগুলোতে ২৪ জন করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ভোট কেন্দ্রের শান্তি বজায় রাখতে দায়িত্ব পালন করবেন।

অবশ্য পুলিশের ভাষায় ঝুঁকির্পূণ নয়; গুরুত্বর্পূণ এবং সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট গ্রহনের লক্ষ্যে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বিশেষ নজরদারী থাকবে।বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে শান্তিপূর্ন পরিবেশে সম্পন্ন করনের লক্ষ্যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর বিশেষ সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।গত  মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) নগরীর আমতলার মোড় এলাকাধীন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের অস্থায়ী কার্যালয়ে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। মেট্রোপলিটন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার মো. মাহফুজুর রহমান এর সভাপতিত্বে বিশেষ সভায় নির্বাচন কর্মকর্তা, র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক, ডিজিএফআই অধিনায়ক, এনএসআই, এপিবিএন ও আনসার কমান্ডারসহ প্রশাসনের সকল পর্যায়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় আগামী ২৮ জুলাই থেকে নির্বাচন পরবর্তী আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সাভাবিক রাখা সহ শান্তিপূর্ন ভোট উৎসবের বিষয়ে নানামুখি সিদ্ধান্ত এবং আলোচনা হয়েছে।

জানাগেছে, নির্বাচন কমিশন থেকে আসন্ন বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহনের জন্য ১২৩টি ভোট কেন্দ্র চুড়ান্ত করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের দিক নির্দেশনা অনুযায়ী ১২৩টি ভোট কেন্দ্রের গুরুত্ব পর্যালোচনা করে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের নগর বিশেষ শাখা সিটিএসবি। কেন্দ্রগুলোকে তারা তিন ক্যাটাগরীতে বিভক্ত করেছেন। তা হলো ঝুকিপূর্ন, অধিক ঝুকিপূ ও সাধারণ। যদিও পুলিশের ভাষায় কেন্দ্রগুলোকে ঝুকিপূর্ন না বলে গুরুত্বপূর্ন ও অধিক গুরুত্বপূর্ন এবং সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here