চান্দিনায় ফের দুই শিক্ষার্থী বহিষ্কার,শিক্ষককে অব্যাহতি

73
আকিবুল ইসলাম হারেছঃ জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট(জেএসসি) পরীক্ষায় নকল করার দায়ে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার দুটি কেন্দ্রের দুই পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া বিধিবহির্ভূতভাবে  দায়িত্ব পালনের অভিযোগে অন্য কেন্দ্রে এক শিক্ষককে পরবর্তী দায়িত্ব পালন থেকে অব্যাহতি দেওয়া সহ আর্থিক দন্ড প্রদান করা হয়।
মঙ্গলবার(৫ নভেম্বর) চান্দিনা উপজেলা দোল্লাই নোয়াবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষা চলার সময় কেন্দ্র পরিদর্শনে যান চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) স্নেহাশীষ দাশ। তিনি এক ছাত্রকে নকল করার অপরাধে বহিষ্কার করেন।অপর দিকে নির্বাহী অফিসার(ভূমি) নাঈমা ইসলাম এতবারপুর আজম উচ্চ বিদ্যালয় ও চান্দিনা আল আমিন কামিল মাদ্রাসা দুটি কেন্দ্রে পরিদর্শনে গিয়ে এক শিক্ষার্থীকে নকল করার অপরাধে বহিষ্কার ও এক শিক্ষককে নিয়মবহির্ভূত দায়িত্ব পালনের কারনে অব্যহতি দিয়ে ২০,০০০ টাকা জরিমারা করেন।
নকলের অভিযোগে বহিষ্কার হওয়া দুই ছাত্র হলো,দোল্লাই নোয়াবপুর আহসান উল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র মো.মাহবুব হোসেন,ভোমরকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়েে ছাত্র জয়চন্দ্র দেবনাথ। দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পাওয়া শিক্ষক হলেন খিরাসার মোহন দাখিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার মো.রুহুল আমিন।
নির্বাহী অফিসার স্নেহাশীষ দাশ বলেন,মঙ্গলবার দোল্লাই নোয়াবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষা চলাকালীন পরিদর্শনে গেলে এক ছাত্রের কাছ থেকে নকল পাওয়া যায়।পরে ১৯৮০ সালের পাবলিক পরীক্ষাসমূহ (অপরাধ) আইনে ওই শিক্ষার্থীকে দোষী সাব্যস্ত করে বহিষ্কার করা হয়।
এদিকে নির্বাহী কর্মকর্তা(ভূমি) নাঈমা ইসলাম জানায়,অব্যাহতি প্রাপ্ত শিক্ষক রুহুল আমিনের মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা চান্দিনা আল আমিন কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছিল। পরীক্ষার তৃতীয় দিন ওই শিক্ষক তাঁর শিক্ষার্থীদের কক্ষে দায়িত্ব পালন করেন।বিধিবহির্ভূতভাবে পরীক্ষায় দায়িত্ব পালনের অপরাধে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয় এবং আর্থিক ২০,০০০ টাকা জরিমানা দন্ড দেয়া হয়।