ভর্তিচ্ছুদের সহযোগিতায় কুবি ছাত্রলীগের নানা পদক্ষেপ

46

কুবি প্রতিনিধি: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় নানান পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে শাখা ছাত্রলীগ। আগামী ৮ ও ৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ২০১৯-২০ সেশনের ভর্তি পরীক্ষায় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সার্বিক সহযোগিতা করতে প্রায় ২১টি কর্মযজ্ঞের ঘোষণা দিয়েছে তারা।

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ ইলিয়াস হোসেন সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাজেদুল ইসলাম মাজেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব পরিকল্পনার কথা জানানো হয়।

তাদের গৃহীত ২১টি পদক্ষেপের মধ্যে রয়েছে- ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের আবাসন ব্যবস্থা; শিক্ষার্থীদের সাথে থাকা মােবাইল, মানিব্যাগ, হাতঘড়ি, কাঁধের ব্যাগসহ প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিরাপদে বিনামূল্যে রাখার জন্য বিশেষ বুথ; ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের দ্রুত সময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়ার জন্য ‘জয় বাংলা বাইক’ সার্ভিস; ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কেউ অসুস্থ হলে ‘ফার্স্ট এইড বক্স’ এর ব্যবস্থা; ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য বিনামূল্যে শরবত ও পানীয়র ব্যবস্থা; অভিভাবকদের বিশ্রামের জন্য সামিয়ানাসহ ৫০০ চেয়ারের ‘অভিভাবক কর্ণার’ এর ব্যবস্থার প্রস্তুতি।

এছাড়াও ক্যাম্পাসের সর্বত্র শিক্ষার্থীদের ভােগান্তি এড়াতে র্যাগিং নিষিদ্ধ করেছে শাখা ছাত্রলীগ। যানজট নিরসনের জন্য বিশেষ ট্রাফিক টিম; ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী অভিভাবকদের জন্য বিনামূল্যে ‘ব্লাড টেস্ট ও ডায়াবেটিস টেস্ট’; ক্যাম্পাসের আশেপাশের হােটেলগুলােতে খাবারের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা; আবাসিক হল গুলােতে পরীক্ষার আগের দিন আঞ্চলিক ও বিভিন্ন সংগঠনের নামে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের মাঝে সাজেশন ও মডেল টেস্ট বিতরণ সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধকরণ; কোনও শিক্ষার্থীর সাথে অনাকাঙ্ক্ষিত কোনও ঘটনা ঘটলে তা জানানাের জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে অভিযােগ বক্স স্থাপন করবে শাখা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ জানান, ‘ভর্তি পরীক্ষায় বরাবরের মতো আমাদের শিক্ষার্থীবান্ধব কাজ অব্যাহত থাকবে। গৃহীত এই পদক্ষেপগুলো পরিপূর্ণভাবে পালনে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। আশা করি, কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।’

উল্লেখ্য, কু্বি ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৮ নভেম্বর শুরু হবে। এদিন সকাল ১০টায় ‘এ’ ইউনিট, বিকেল ৩টায় ‘বি’ ইউনিট’; পরদিন (৯ নভেম্বর) সকাল ১০টায় ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১ হাজার ৪০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ৬৮ হাজার ৭৭ জন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী যেখানে প্রতি আসনে লড়বে ৬৫ জন শিক্ষার্থী।