সরাইলে সরকারি জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণ

92
মো: তাসলিম উদ্দিন: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জনসাধারণের চলাচলের পথ ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠের জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণ করছেন এক প্রভাবশালী ব্যক্তি। আর এ দখলে সহযোগিতা করেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। এ ঘটনায় এলাকায় জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হলেও প্রভাবশালী দখলদারদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেন না। এদিকে রোববার বিকেলে এ আলোচিত-সমালোচিত দখল নিয়ে খোদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা প্রিয়াংকা সাংবাদিকদের জানান, সরকারি জায়গা দখল করবে প্রভাবশালী লোকেরা, আর আমরা হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকবো তা হবেনা। নিজে সরেজমিন গিয়ে সেই জায়গা দখলমুক্ত করবেন বলে তিনি জানান।রোববার দুপুরে সরেজমিনে উপজেলার নোয়াগাঁও ইউপির বুড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের জায়গাসহ পাশের হালট শ্রেণীর সরকারি জায়গা অবৈধ দখলের পর সেখানে মার্কেট নির্মাণ করছেন স্থানীয় সোহাগ মিয়া নামে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি। তবে এ ব্যাপারে বক্তব্য নিতে বাড়িতে গেলে সোহাগ মিয়াকে পাওয়া যায়নি।
বুড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আবদুল মোহিত বলেন, সরকারি এ জায়গাটি কিছুদিন আগে কাবিখা বরাদ্দে ভরাট করে দেন স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বার। তারপর সেই জায়গায় মার্কেট নির্মাণ করছেন বুড্ডা গ্রামের সোহাগ মিয়া। বুড্ডা গ্রামের সুখদেব দাস, দিপু দাস, নিয়ামত উল্লাহ, রমুজ আলী, নান্টু দাস সহ অনেকে জানান, এই মার্কেট নির্মাণে জনসাধারণের সরকারি রাস্তা দখল করা হয়েছে। সোহাগ মিয়ার কাছ থেকে দুই লক্ষাধিক টাকা উৎকোচ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সরকারি বরাদ্দ এনে সরকারি জায়গা ভরাট করে এই মার্কেট নির্মাণে সহযোগিতা করেছেন তারা।এ ব্যাপারে নোয়াগাঁও ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা মোছা. নাসরিন বেগম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সরকারি জায়গা দখলের সত্যতা পাই। প্রাথমিক মাপজোকে দেখা যায় সেই মার্কেটের বেশকিছু অংশ সরকারি জায়গায় পড়েছে। মার্কেট নির্মাণের কাজ বন্ধের নির্দেশ দিয়ে এসেছি। নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কাজল চৌধুরী বলেন, সেখানে স্কুল মাঠ ভরাটের জন্য কাবিখা কর্মসূচির সাড়ে সাত মেট্টিক টন খাদ্যশস্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। সেই মার্কেটের কিছু অংশ সরকারি জায়গায় পড়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, সেখানে আশপাশের সকল দোকান সরকারি জায়গায় গড়ে তোলা। সেখানকার সোহাগ মিয়ার মার্কেট উচ্ছেদ করতে হলে, এরআগে সকল অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে হবে। অন্যথায় ঝামেলা সৃষ্টি হতে পারে।