সিরাজগঞ্জে ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা : আটক ৩

145

হুমায়ুন কবির সুমন: সিরাজগঞ্জের সদর উপজেলায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত আওয়ামীলীগ নেতা বকুল হায়দারের বাড়ীতে এখন চলছে শোকের মাতম। ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি নিহতের স্বজনদের। এদিকে বকুল হত্যার প্রতিবাদে সকালে সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসি। পুলিশ বলছে হত্যার কারণ উদঘাটনের জন্য তদন্ত চলছে। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন জনকে আটক করা হয়েছে। সিরাজগঞ্জ সদর উপজলোর বাগবাটি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও বার বার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত জনপ্রিয় ওয়ার্ড সদস্য বকুল হায়দারের মৃত্যুতে এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে। বিচারের দাবিতে স্বোচ্চার হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী ও দলীয় নেতা কর্মীরা। নিহত বকুল হায়দার এলাকার জনপ্রিয় ব্যক্তি হওয়ায় তার এই মৃত্যু মেনে নিতে পারছেনা তারা। যে কারনে সকাল থেকেই সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল বের প্রতিবাদ করে এলাকাবাসী। ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে দোষীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানিয়েছেন তারা।
নিহত বুকলের পরিবারের দাবী জনপ্রিয় হওয়ার কারনেই পুর্ব শত্র“তার জের ধরেই পরিকল্পিত ভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে।
সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, বকুল হত্যার ঘটনায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ঘটনা তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এখন পর্যন্ত তিন জনকে আটক করা হয়েছে।
উল্লেখ্য শনিবার রাত ৮টার দিকে পিপুলবাড়ীয়া বাজারে একটি শালীস বৈঠক থেকে রফিকুল ইসলাম নামে একজনের সাথে মোটর সাইকেলযোগে বাড়ীর দিকে যাচ্ছিলেন। তারা দত্তবাড়ী ব্রীজের কাছে পৌছলে সাইড থেকে গুলি করে পালিয়ে যায় দূর্বৃত্তরা। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।