২০১৮ সালে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

130

স্টাফ রিপোর্টার: ভোলার লালমোহনে ডাকাতি ও মানবপাচারসহ ৪ মামলার পলাতক আসামি হাসানকে আটক করেছে লালমোহন থানা পুলিশ। হাসানকে আটকের পর ২০১৮ সালের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায়, গ্রেপ্তার হওয়া হাসান স্থানীয় জসিম নামে এক যুবককে স্ত্রী-সন্তানের সামনে উলঙ্গ করে নির্যাতন করছেন।

সোমবার (২৮ অক্টোবর) সকাল থেকে এ ভিডিও সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। এর আগে রোববার দিবাগত রাতে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, ২০১৮ সালে উপজেলার কালমা ইউনিয়নের মোটরসাইকেল চালক জসিম উদ্দিনকে দুই সন্তানের সামনে উলঙ্গ করে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে হাসান। লোমহর্ষক সেই নির্যাতনের ভিডিও এতোদিন সংরক্ষণ থাকলেও ভয়ে তা প্রকাশ করেনি কেউ। রোববার নির্যাতনকারী কালমা ইউনিয়নের চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ডাকাতি মামলার আসামি হাসানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এর পরপরই ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়া হয় ফেসবুকে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, উপজেলার ডাওরী বাজারে একই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা শাহার আলী বাড়ির মৃত আব্দুল মুন্নাফের ছেলে মোটরসাইকেল চালক জসিমকে শত শত মানুষ ও তার দুই শিশুসন্তানের সামনে নির্যাতন করা হচ্ছে। নির্যাতনকারী হাসান কালমা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মিস্ত্রি বাড়ির আবুল হোসেন ড্রাইভারের ছেলে। চোর ও সন্ত্রাসী অ্যাখ্যা দিয়ে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মমভাবে নির্যাতন করে।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রূল কবীর জানান, রাজনৈতিক কারণে হাসান কর্তৃক এক ব্যক্তিকে নির্যাতনের ভিডিওটি ২০১৮ সালের। হাসানকে রোববার ডাকাতি মামলায় গ্রেপ্তার করার পর এ ভিডিওটি ছাড়া হয়েছে। নির্যাতনের স্বীকার জসিমের বিরূদ্ধেও মাদক ও অস্ত্র আইনে ৪টি মামলা রয়েছে। তিনি আরো বলেন, নির্যাতনকারী হাসানের বিরূদ্ধে চট্টগ্রাম ও হালিশহর থানায় অস্ত্র, মাদক, এবং লালমোহন থানায় ডাকাতির ৩টি মামলা রয়েছে।