সিরাজগঞ্জের খোকশাবাড়ীতে আবাসন প্রকল্পের ঘর পেয়ে খুশি দুস্থ পরিবার

152
হুমায়ুন কবির সুমন: সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার ৫নং খোকশাবাড়ী ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক আবাসন প্রকল্পের বরাদ্দকৃত ঘর পেয়ে খুশি হয়েছে ওই ইউপির দুইটি পরিবার। দুস্থরা ঘর পেয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে দু’হাত তুলে দোয়া করেন।
প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর পেলেন যারা, খোকশাবাড়ী ইউপির পুরান শৈলাবাড়ী গ্রামের মৃত সফিকুল ইসলামের স্ত্রী মোছাঃ আসমা বেওয়া ও মৃত আবুল কাশেমের স্ত্রী মোছাঃ রোকেয়া বেওয়া।

সরজািমনে জানা যায়, গৃহহীন এসব পরিবারে টিন ও দালান ঘর নির্মাণ করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ২ লাখ ৫৮ হাজার টাকায় দালান, রান্না ঘর ও টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। যেসব পরিবারের ভিটেবাড়ি ও ৩ থেকে ১০ শতাংশ জমি আছে কিন্তু মাটি কিংবা বেড়ার ঘর তাদের এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েেেছ। খোকশাবাড়ী ইউনিয়নে গৃহহীন দুটি পরিবার কখনো স্বপ্নেও ভাবেনি তারা পাকা ঘরে ঘুমাবেন। গৃহহীন পরিবারগুলো পাকা ঘর পেয়ে দারুণ খুশি।

আবাসন প্রকল্পের দালানঘর পাওয়া খোকশাবাড়ীর পুরান শৈলাবাড়ী গ্রামের আসমা বেওয়া ও রোকেয়া বেওয়া বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে আমাদের  ঘর বানিয়ে দিয়েছেন তাই আমার  অনেক খুশি। স্বামী মারা যাবার পর কোনো দিন স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি পাকা দালানঘরে ঘুমাতে পারব। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিয়েছে, এজন্য কৃতজ্ঞতা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি। বিনা টাকায় পাকা বাড়ী এটা এখনো স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে বলে জানালেন দুই দুস্থ পরিবার।

এ বিষয়ে কথা হয় স্থানীয় মেম্বার জাহাঙ্গীর আলমের সাথে তিনি বলেন, প্রথমেই কৃতজ্ঞতা জানাই মাননীয় প্রধানমন্ত্র কে। গ্রাম হবে শহর এই শ্লোগান বাস্তবায়নে গ্রামীন দরিদ্র জনগোষ্টির জীবনমান উন্নয়নে টেকশই গৃহনির্মাণে সরকারী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে খোশাবাড়ী ইউপিতে ২ দুস্থ পরিবারকে পাকা দালান ঘর তৈরি করে দেয়া হয়েছে। প্রত্যেকটি ঘরের মেজে  পাকা, উপরে টিন এবং একটি পাকা টয়লেট তৈরি করে দেয়া হয়েছে। পরিবেশ বান্ধব ঘর পেয়ে সত্যিই গৃহহীন পরিবারগুলো দারুণ খুশি।

খোকশাবাড়ী ইউপি চেয়াম্যান রাশিদুল ইসলাম জানান, আবাসন প্রকল্পের বরাদ্দকৃত দুটি ঘর আমার ইউপিতে পেয়েছি। এলাকার দুস্থ দুই পারিরের মাঝে বন্টন করা হয়েছে। ঘর পেয়ে সত্যিই গৃহহীন পরিবারগুলো দারুণ খুশি।