পরকিয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

83

স্টাফ রিপোর্টার: স্বামীর পরোকিয়া প্রেমে বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজারের বিশ্বনন্দী ইউনয়নের কড়ইতলা পাঁচানিপাড়া এলাকার কুলসুম (১৯) নামে এক গৃহবধূকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী শাহআলমের বিরূদ্ধে।

গতকাল সোমবার সকালে নিহতের শ্বশুর ও শ্বাশুড়ি তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরূরী বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক আশরাফুল আমীন কুলসুমকে মৃত ঘোষণা করেন। রোববার রাতে কোন একসময় নিহতের শোবার ঘরে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে উপর্যুপরি আঘাত করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের দাবী স্বামীসহ তার পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। নিহত কুলসুমের পাঁচ মাস বয়সি এক সন্তান রয়েছে। খবর পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ নারায়ণগঞ্জ ভিক্ট্রোরিয়া হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা একটি বাঁশের লাঠি উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহতের চাচা শুকুর আলী বাদী হয়ে শাহআলমকে প্রধান আসামি করে পরিবারের আরো তিন জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিহতের শ্বশুর কড়ইতলা পাঁচানীপাড়া এলাকার মৃত সুরূজ মিয়ার ছেলে ঘাতক শাহআলমের বাবা আব্দুল জলিল (৭০) ও তার স্ত্রী কুলসুম (৬৫) কে আটক করেছে পুলিশ। তবে ঘটনার পরই নিহতের স্বামী পালিয়ে গেছে। নিহতের চাচা শুকুর আলী জানান, ২ বছর আগে স্থানীয় বিশ্বনন্দী ইউপির মানিকপুর এলাকার মৃত আব্দুল হকের মেয়ে কুলসুমকে পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। এরই মধ্যে তাদের দাম্পত্য জীবনে এক সন্তান জম্ম নেয়। তিনি আরো বলেন, বড় ভাই মালয়েশিয়া প্রবাসী বিল্লালের স্ত্রী রাশিদার সঙ্গে শাহআলমের পরকিয়ার সম্পর্ক চলছিল। এনিয়ে তাদের সংসারে মনোমালিন্য দেখা দেয়। বেশ কয়েকবার বিচার-শালিসও করা হয়। এরই জেরে রাতে স্বামী ঘুমন্ত কুলসুমকে বাঁশের লাঠি দিয়ে মাথাসহ শরীরিরের বিভিন্ন স্থানে উপর্যুপরি আঘাত করে হত্যা করেছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি নজরূল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। এরই মধ্যে দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।