নেত্রকোনায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তদন্তের দাবী এলাকাবাসীর

400

ইকবাল হাসান: নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলাধীন পূর্বধলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে নানা অভিযোগ আনয়ন করায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে। তার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ সম্পুর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে জানান প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ। পাল্টা অভিযোগকারী যুবক রাজিবুল ইসলাম রাজিবের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ।

কলেজ কার্যালয় থেকে জানা যায়, ঐতিহ্যবাহী পূর্বধলা সরকারি কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৯ সালে। পরবর্তীতে বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্ণীতি ও অব্যবস্থাপনার বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর জাতীয়করণের আওতায় আসে উপজেলার সর্বোচ্চ এই বিদ্যাপীঠটি।

পূর্বধলা বাজারের ব্যবসায়ী রতন মিয়া জানান, এই এলাকার রাজিবুল ইসলাম রাজিব নামে এক যুবক এই কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতনের বিরুদ্ধে,পরিক্ষায় অতিরিক্ত ফিস আদায় সহ মিথ্যা তথ্য এলাকায় প্রচার করে বেড়াচ্ছে। এলাকার মানুষ মনে করে এই যুবকটি সত্যিকারেই পাগলামি করে যা ইচ্ছা তাই বলছে। কেউ কেউ এহেন যুবকের দ্বারা অধ্যক্ষকে এই বিদ্যাপীঠ থেকে অপসারণ করে অতীতের মতো ফায়দা লুঠার চেষ্ঠা করছে। একটি ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠের সুনাম এভাবে ক্ষুন্ন করা আদৌ কাম্য নয়।

কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতন বলেন,আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ ভিত্তিহীন, সম্পুর্ণ মিথ্যা । কলেজের ফিস আদায়সহ বিভিন্ন হিসাব আমার কাছে লিখিতভাবে আছে। মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন এক যুবকের অভিযোগে আমার কিছু যায় আসে না।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে কুলসুম বলেন, রাজিবুল ইসলাম রাজিব নামে যুবকটি পূর্বধলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি।এই যুবকটির আচার-আচরণ মানসিক ভারসাম্যহীন বলে মনে হচ্ছে। অভিযোগটি যথাযথভাবে তদন্তের জন্য ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান জানান, কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়টি আমি জেনেছি । রাজিবুল ইসলাম রাজিব নামের যুবকের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে একটি অভিযোগ আমি পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে অবহিত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here