মিরসরাইয়ে এবার ৮৬ মণ্ডপে হবে দূর্গাপূজা

83

ইকবাল হোসেন জীবন: মিরসরাইয়ে দুর্গোৎসবকে ঘিরে সনাতনী সম্প্রদায়ের ঘরে ঘরে ইতিমধ্যে আনন্দের জোয়ার বইতে শুরু করেছে। উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে মীরসরাই উপজেলায় ৮৬টি মণ্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজার ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে প্রতিমা নির্মাণের কাজ। প্রতিমা নির্মাণ শিল্পীদের এক মুহূর্ত বসার সময় নেই। এছাড়া জোরাররগঞ্জ ইউনিয়নের দেওয়ানপুরে চারটি ঘট পূজা (প্রতিমা বিহীন) হবে। পূজা উপলক্ষে প্রতিটি মন্দিরের বাড়তি আলোকসজ্জার পাশাপাশি ধনুচি নাচসহ মনোরম সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। প্রতিটি বাড়িতে তৈরি করা হয় নারিকেলের নাড়–সহ বিভিন্ন মুখরোচক খাবার।

জানা গেছে, আগামী ৪ অক্টোবর ৫ দিন ব্যাপী দুর্গা পূজা শুরু হবে। এইবার উপজেলায় ৪টি ঘট পূজাসহ ৮৬টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পূজা মন্ডপগুলোকে ২ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। দুইটি থানার অধীনে পূজা মন্ডপগুলোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ৮৬টির মধ্যে ৪৮টির নিরাপত্তার দায়িত্ব থাকবে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। বাকি ৩৮টি থাকবে মিরসরাই থানা পুলিশ।

সরেজমিনে বিভিন্ন পূর্জা মন্ডপে ঘুরে দেখা গেছে, মৃৎ শিল্পীদের নির্ঘুম রাত কাটছে। ঠিক সময়ে খাওয়া দাওয়ার করার সময় নেই। রাতদিন এক করে শুধু কাজ চলছে। শরিয়তপুর থেকে মিরসরাই পৌরসভার (১ নং ওয়ার্ড) মধ্য তালবাড়িয়ার সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষা কালী বাড়িতে দূর্গা প্রতিমা তৈরি করতে আসা লক্ষণ পাল চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে জানান, এবছর তিনি প্রায় ১০টি প্রতিমার অর্ডার নিয়েছেন। সব কয়টি প্রতিমার মাটির কাজ শেষ হয়েছে। এখন চলছে রংয়ের কাজ। তবে তার প্রতিমা তৈরির সংখ্যা মিরসরাইয়ে বেশি।

লক্ষণ পাল আরও বলেন, প্রতিমা তৈরিতে ব্যবহার করা হয়েছে মাটি, খড়, পাট, কাপড়, বাশঁ ও রং ইত্যাদি। কারিগরের সুনিপুন হাতের কাজ প্রতিমাকে আরো বেশি উজ্জ্বল ও সুন্দর করে তোলে। তিনি আরো জানান, কাজের আকার ভেদে একটি প্রতিমা তৈরি করতে সব্বোর্চ ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক হিসেবে নিয়ে থাকেন।

মধ্য তালবাড়িয়া সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষা কালী বাড়ির মন্দির ও দূর্গা মন্দির (দেবত্ব) কমিটির সভাপতি অভি রায় জানান, দূর্গা পূজা সার্বজনীন। মিরসরাইয়ের মধ্যে আমাদের পূর্জাটি সেরা পূজা হবে আশা করছি। পূর্জা উদ্যাপন কমিটি ও গ্রামের সবার সহযোগিতায় পূজার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। অনুষ্ঠিত হয়েছে একাধিক বৈঠক।
উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ সরকার জানান, এইবার মিরসরাই উপজেলায় ৪টি ঘট পূর্জা সহ ৮৬টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপের সভাপতি-সম্পাদক ও প্রশাসনের সাথে পূজা উদ্যাপন পরিষদের প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মিরসরাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দেবনাথ বলেন, মিরসরাই ৮৬টি পূজা মন্ডপের নিরাপত্তায় পুলিশ ছাড়াও আনসার সদস্য নিয়োজিত থাকবে। দূর্গা পূজার নিরাপত্তায় গোয়েন্দা নজরদারিতে সিভিল টিম এবং আমাদের সাদা পোশাক পরিহিত পুলিশ সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে।