তিতাসে নিজ শরীরে আগুন লাগিয়ে স্ত্রীর আত্মহত্যা

36

হালিম সৈকত: মিল্লার তিতাসে নিজ শরীরের কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে তিন সন্তানের জননী শিউলী আক্তার (২৫) নামে এক গৃহিণী। ৫নং কলাকান্দি ইউনিয়নের হাড়াইকান্দি গ্রামে ৫ সেপ্টেম্বর ভোর ৬ টায় এ ঘটনা ঘটে। শিউলী আক্তার হাড়াইকান্দি গ্রামের দিন মজুর মো: ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্ত্রী, মেয়ে সানজিদা আক্তার (১০), মিতু আক্তার (৮) এবং ছেলে সাজ্জাদ হোসেন (৩) কে নিয়ে ইসমাইল হোসেন এর সংসার। কোন রকমভাবে চলত তাদের অভাবের সংসার।

প্রতিদিন মাটি কেঁটে যা রোজগার হতো তা দিয়েই কোন রকমে সংসার চলতো ইসমাইলের। ১১ বছর আগে মুরাদনগর উপজেলার ইমানদিকান্দি গ্রামের বাচ্চু মিয়ার মেয়ে শিউলীকে বিয়ে করে দিন মজুর ইসমাঈল।শাশুড়ির খাওয়া দাওয়া নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো তাদের ঘরে। প্রতিদিনের মতো সে দিনেও স্বামী-স্ত্রী ও শাশুড়ির মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে জেদের বশে শিউলি নিজ শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় এবং বাচ্চাদের ডাকতে থাকে। কিন্তু বড় মেয়ে সানাজিদা কাথা দিয়ে আগুন নিভাতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা কলেজ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে দুপুর ১টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিউলী। তবে এই ঘটনার পর থেকে শিউলীর স্বামী ও শশুড় বাড়ীর লোকজন পলাতক রয়েছে।

কলাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ বাহার জানান, আমি শুনেছি হাড়াইকান্দির একটি মেয়ে নিজ গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ নিয়ে গেলে সেখানে সে মারা যায়। তার শরীরের প্রায় ৯০ ভাগ পুড়ে গেছে বলে জানা যায়। আজ সকালে মেয়েটির লাশ ঢাকা থেকে গ্রামে নিয়ে আসা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here