বাবার কাছে খাবার নিয়ে যাওয়া হল না সাদিয়ার

77

আবির খান আশিক: নবম শ্রেনির ছাত্রী সাদিয়া আক্তার (১৫)। তার নিত্যদিনের কাজ প্রত্যেকদিন দুপুর বেলায় বাবার জন্য খাবার নিয়ে যাওয়ার। আজও তার ব্যাতিক্রম হল না। প্রত্যেকদিনের মত আজও বাবার জন্য খাবার নিয়ে রওনা হল। কিন্তু প্রত্যেকদিনের মত আজ আর বাবার কাছে পৌছাঁতে পারল না সে। রাস্তার মধ্যেই সব শেষ। বাবার কাছে পৌছাঁনোর আগে জীবন নিয়ে নিল ট্রাক।

ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহান এলাকায়। । দূর্ঘটনার পর ট্রাকটিতে আগুন ধরিয়ে দেয় স্থানীয়রা। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রন আনে।

নিহত সাদিয়া আক্তার শালবাহান ইউনিয়নের যুগীগছ এলাকার ইস্রাফিল হোসেনের মেয়ে। সে শালবাহান দ্বিমুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেনিতে পড়তো। নিহত সাদিয়ার বাবা ইস্রাফিল হোসেন শালবাহান বাজারে এ্যালোমিনিয়াম দোকান করেন। আজ শুক্রবার রাস্তা দিয়ে খাবার নিয়ে যাচ্ছিল সাদিয়া আক্তার। অগ্রনী ব্যাংকের সামনে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা বাংলাবান্ধাগামী একটি ট্রাক তাকে চাপায় দেয়। ঘটনাস্থলেই সাদিয়ার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় ফায়ার সার্ভিস, সেখানে গিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া ট্রাকটির আগুন নেভায় ফায়ার সার্ভিসের একটি দল। ঘাতক ট্রাকের ড্রাইভারকে ধরে স্থানীয়রা পুলিশে ধরিয়ে দেয়। ঘাতক ট্রাকের ড্রাইভার এর নাম কৃষ্ণকান্ত রায় (২১)।

তেতুঁলিয়া মডেল থানার ওসি জহুরুল বলেন, স্কুলছাত্রী নিহত হওয়ার পর ট্রাকটিতে আগুন ধরিয়ে দেয় স্থানীয়রা, পরে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। পুলিশ জানায়, ঘাতক ট্রাকের ড্রাইভারের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।