কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে পিতা খুন!

106

নূরুল আলম আবির, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

পিতার মমতামাখা কোল, সন্তানের জন্য সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয়। পিতা-মাতার স্নেহের পরশে ধীরে ধীরে বড় হয় কলিজার টুকরো সন্তানেরা। পিতা তার সন্তানকে জীবনে চলার পথে দুঃসাহস দিয়ে আশির্বাদ করে। কারণ সন্তানের গৌরব মানেই তো পিতা-মাতার গৌরব। আর সে সন্তান যদি হয় পিতার হত্যাকারী; তবে তো মানতেই হয়, সামাজিক তথা সকল নৈতিক মূল্যবোধের অবক্ষয় ঘটেছে চরমভাবে। এমনই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে। নেশাগ্রস্ত ছেলের লাঠির আঘাতে ঘটনাস্থলেই পিতার মৃত্যু হয়। হতভাগ্য নিহত পিতার নাম আবদুস সাত্তার প্রকাশ মাইনু মিয়া(৬২)। আজ রোববার (৪ নভেম্বর)   সকালে উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘাতক ছেলে ফরহাদ হোসেনকে আটক শেষে পুলিশের নিকট সোপর্দ করেছে বিক্ষোব্ধ জনতা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, পারিবারিক বিরোধ নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে রোববার সকালে নেশাগ্রস্ত ছেলে স্বাস্থ্য সহকারী ফরহাদ হোসেন তার পিতা আবদুস সাত্তার মাইনু মিয়ার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই মাইনু মিয়ার মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা ঘাতক ছেলে ফরহাদ হোসেনকে আটকে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশটি উদ্ধার ও ঘাতক ছেলে ফরহাদকে আটক করে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ফরহাদ হোসেন মাদকাসক্ত হয়ে পরিবারের সদস্যদের উপর অত্যাচার করছিল। এর আগেও সে বেশ কয়েকবার পিতাসহ পরিবারের সদস্যদের সাথে ঝগড়া-বিবাদ করেছে। তার অবস্থার অবনতি হলে, কয়েকমাস আগে তাকে মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসাও দেয়া হয়েছে। আজ সকালে পারিবারিক বিষয়ে কথা বলতে বলতেই এক পর্যায়ে ফরহাদ তার বাবার সাথে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। কিছুক্ষণ পর ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি হাতে পিতার উপর আক্রমণ করে সে। বৃদ্ধ পিতা নিষ্ঠুর ছেলের ক্ষিপ্ত আঘাতে মাটিতে ঢলে পড়ে। ক্ষোভে দুঃখে পাড়ি জমায় ওপারে। যেখানে গেলে কেউ আর ফিরে আসে না। এমন বেদনাবিধূর ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here