ঝালকাঠিতে পিতাকে হাত করে ভাইকে কবলা সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র

158

রেজাউল ইসলাম পলাশ: ঝালকাঠির রাজাপুরে সম্প্রতি মাদ্রাসা অধ্যক্ষ পুত্রের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ৮৩ বছর বয়সের বৃদ্ধ পিতা মোঃ আমির হোসেন। তিনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের রোলা গ্রামের সভ্রান্ত মরহুম আব্দুল আজিজ মুন্সীর বড় ছেলে। এমন ঘটনার ব্যাপারে অভিযুক্ত বড় ছেলে মাওলানা মুহাম্মদ মুস্তাকীম বিল্লাহর নিকট তার বক্তাব্য জানতে চাইলে অপ্রত্যাশিতভাবে কেঁচো খুড়তে সাপ বের হওয়ার মতো ঘটনা প্রকাশ পায়। রাজনৈতিক শক্তির জোরে দখলদার আপন বড় ভাইকে চাচা ও ফুফুর কাছ খেকে পরিবার তথা পিতার সম্মতিতে ক্রয়কৃত ১০ নং রোলা মৌজায় বিএস-২৯২/১৬৪ খতিয়ানের ৭২৭ ও ৭২৮ দাগের প্রায় ১৯ শতাংশ বাড়ির জমি। যাহা ১৬৯৬/২০১৭, ১৮২৭ ও ২৭৬০/২০১৮, ১০৯/২০১৯ নং সহ অন্যান্য কবলা দলিল মূলে মালিক হইয়া বসবাস করিবার জন্য পিতার বসতঘড় সংলগ্ন দক্ষিন পাশে পাকা বারান্দা নির্মান (নিজ নামে বৈদ্যতিক সংযোগ সহ ইউনিয়ন পরিষদের হোল্ডিং নং-০৪৭২) ও বাগানবাড়ি হইতে গত জুন মাসে অধ্যক্ষ ভাইকে কবলা সম্পত্তি থেকে জোর করে দখলচ্যুত করা নিয়ে ভাইদের বিবাদ চলছে। কবলা দলিল মুলে স্বত্ববান বড় ভাই (মাদ্রাসার অধ্যক্ষ) ছোট ভাইদের বেআইনি বল প্রয়োগের বিরুদ্ধে এবং তার দখল বজায় রাখার জন্য আইনি সহায়তা চেয়ে চলতি বছর জুলাই মাসে বিজ্ঞ আদালতে দেওয়ানী মামলা দায়ের করলে দুই সহদর আরো ক্ষিপ্ত হয়।

অপর দিকে জুন মাসের তৃত্বীয় সপ্তাহে বৃদ্ধ পিতা মোঃ আমির হোসেন তার বসত বাড়ির প্রায় সমুদয় সম্পত্তি অপর পূত্র মসিউর রহমানকে ৫০২/২০১৯ নং হেবা ঘোষনা দলিল মুলে দান করেন। জমি দান করাকে কেন্দ্র করে চলতি বছরের ২ আগস্ট পিতা পুত্র ও ভাইদের মধ্যে নিজ বাড়িতে কথা কাটাকাটি এবং হাতাহাতি সংগঠিত হয়। ঐ ঘটনায় ৮ আগষ্ট ২০১৯ তারিখে ঝালকাঠি বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বড় ছেলেকে আসামি করে অন্য ছেলেদের প্ররোচনায় মামলা দায়ের করেন বৃদ্ধ পিতা মোঃ আমির হোসেন। অভিযুক্ত অধ্যক্ষ পুত্র তার বিরুদ্ধে পিতার দয়ের করা মামলায় ১৯ আগস্ট উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেয়। জামিনে আসার পর ২৩ আগষ্ট ২০১৯ শুক্রবার যথারীতি জুম্মার নামাজের খুতবা দিতে বাড়ির জামে মসজিদে গেলে পিতার উপস্থিতিতে সহদরদের বাধার মুখে পরে এবং ভাই মসিউর রহমান উপস্থিত মুসল্লিদের সামনে খুতবা মিম্বর দখল করে বসে থাকেন। নামাজের পূর্বে উপস্থিত এলাকার মুসল্লিদের সামনে মসজিদের ভিতরেই ভাইদের মধ্যে ২ আগষ্টের ঘটনার মতো পুনরাবৃত্তি ঘটে।

এ সময় মসজিদের অসহায় মুসল্লিরা থানায় খবর দিলে ঘটনা স্থলে পুলিশ উপস্থিতি হয় পরে থানায় নিয়ে এসে উত্তেজনা প্রসমিত করে। জুম্মার নামাজের পূর্বে সংগঠিত ঘটনায় অপর ভাই মহসিন আহত হয়েছেন এমন দাবীতে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ব্যাপারে বৃদ্ধ মোঃ আমির হোসেন এর সংবাদ সম্মেলনে অভিযুক্ত বড় ছেলে ও পূর্ব পুটিয়াখালী দারুচ্ছালাম ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ মুস্তাকীম বিল্লাহর কাছে জানতে চাইলে তিনি ভাইদের বিরুদ্ধে পিতার জমি আত্মসাতের অভিযোগ করে বলেন আমার পিতার সরলতার সুযোগে তার বাড়িঘড় জমির দলিল করে হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। পিতা তাদের নিয়ন্ত্রণে থাকায় তাকে জিম্মি করে তার সর্বস্ব লুটে নিচ্ছে তারা। আর বার্ধাক্যে অসুস্থ পিতাকে প্ররোচনা দিয়ে ও বাধ্য করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দায়ের করা, সংবাদ সম্মেলন সহ সম্মান হানীর অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আর তাদের এই সকল অনৈতিক কর্মকান্ড আমার পিতাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে পিতার উত্থপিত নির্যাতন সহ সম্পূর্ন অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, পিতার কাছে আমার কবলা স্বত্ববান সম্পত্তি (ভাইদের জবর-দখল করা) পুনরুদ্ধার করে আমার প্রাপ্য বুঝে নিতে চেয়েছি মাত্র। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৃদ্ধ মোঃ আমির হোসেনের এক প্রতিবেশী জানান এটি একটি তার পরিবারের ধারাবাহিক ঘটনা। আমির হোসেনের একাধিক ভাই বিগত দিনে এরকম ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে পৈতৃক সম্পত্তি ফেলে অন্যত্র গিয়ে বসবাস করতে বাধ্য হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here