জগন্নাথপুরের আলাগদি’র নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

113

মো: সুজাত আলী: “কোন মিস্ত্রি নাও বানাইলো কেমন দেখা যায়, ঝিলমিল ঝিলমিল করেরে ময়ূর পঙ্কি নায়” লোক সংস্কৃতির রাজধানী খ্যাত হাওর অধ্যুষিত সুনামগঞ্জ জেলার মানুষের অন্যতম বিনোদন মাধ্যম আবহমান গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ। হাওর অধ্যুষিত সুনামগঞ্জের মাটি ও মানুষের সাথে নদী ও হাওরের সম্পর্ক একেকার হয়ে মিশে আছে। এ এলাকায় নৌকা শুধু যোগাযোগের মাধ্যম নয় এখানের মানুষের প্রাণোচ্ছল জল ক্রীড়া সঙ্গী। সম্প্রতি বন্যার পর মানুষ দুঃখ বেদনা ভুলে ঐতিহ্যের অন্যমতম বিনোদন নৌকা বাইচ দেখতে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের আলাগদি গ্রামবাসীর উদ্যোগে আলাগদি গ্রামের উত্তরের হাওরে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হয়েছে।

আলাগদি গ্রামের উত্তরের হাওরে পুরুষ, নারী, শিশু সহ সকল শ্রেনী পেশার কয়েক হাজার মানুষ আনন্দ উল্লাসে মেতে ওঠেন। হাওরে বুকজুড়ে ‘হেইয়ারে হেইয়া হু’ হর্ষ ধ্বনীতে মুখরিত ছিল। রোমাঞ্চকর এই নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতায় জগন্নাথপুর উপজেলার আলাগদি গ্রামের সোনার বাংলা, সৈয়দপুর শাহারপাড়া গ্রামের বাংলা পবন দুটি নৌকা এ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে। প্রতিযোগিতায় সৈয়দপুর শাহারপাড়া গ্রামের বাংলা পবন প্রথম স্থান অর্জন করে, আলাগদি গ্রামের সোনার বাংলা দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে।

পরে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তৈয়ব মিয়া কামালী, পাইলগাঁ ইউনিয়র পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মখলুছ মিয়া, পাইলগাঁ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক হাজী আব্দুল তাহিদ, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আবুল হোসেন লালন, জগন্নাথপুর থানার এসআই গোলাম ফাত্তাহ, শিবলু মজুমদার, সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার, গোবিন্দ দেব, সমাজ সেবক আল আমিন, আয়োজক কমিটির সদস্য আব্দুল বাকি, ইসলাম উদ্দিন, আব্দুল শহিদ, আব্দুল বারিক, আব্দুল গণি, আব্দুল আহাদ, আলাউর রহমান আলা, তোতা মিয়া, আছকা মিয়া, ইয়াওর মিয়া, বাদশা মিয়া, ধন মিয়া, আনছার মিয়া সহ অত্র এলাকার হাজার হাজার জনসাধারন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here