বগুড়ায় স্কুলছাত্রীকে নৌকার ভিতরে ধর্ষণ

130

জিএম মিজান: বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় নবম শ্রেণির এক ছাত্রী (১৬) কে শামীম আহমেদ (৩০) নামে এক অটোচালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ময়ুরের চর এলাকায় যমুনা নদীতে একটি নৌকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। এদিকে অভিযুক্ত শামীম পলাতক রয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জান যায়, সারিয়াকান্দি উপজেলার নারচি ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের সুরুজ্জামানের ছেলে শামীম আহমেদ পেশায় অটোরিকশা চালক। আর ভুক্তভোগী মেয়েটির বাড়ি একই উপজেলার গণকপাড়া গ্রামে। সে গণকপাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী। শামীম মোবাইল ফোনে মেয়েটির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে এর সুত্র ধরে। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে সে মোবাইলে ওই ছাত্রীকে শেখাহাটি গ্রামে আসতে বলে আর মেয়েটি শামীমের কথা অনুযায়ী শেখাহাটি গ্রামে আসে। এরপর শামীম তাকে মোটরসাইকেলে করে যমুনা নদীর কালিতলা ঘাটে নিয়ে যায়। নদীতে বেড়ানোর কথা বলে শামীম তাকে একটি ভাড়া নৌকায় ওঠায়। নৌকায় ওঠার পর শামীম নৌকার মাঝিকে ম্যানেজ করে এবং ওই ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। পরে নৌকাটি ময়ুরের চরে পৌঁছালে ওই ছাত্রী স্থানীয় লোকজনের কাছে ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ করে। এসময় শামীম কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে যায়। চরের লোকেরা সারিয়াকান্দি থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধারের পর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেয়। ওই ছাত্রী জানায়,শামীম বলেছিল তাকে বিয়ে করবে। এছাড়া, বেড়ানোর কথা বলে যমুনা নদীতে নৌকায় তুলেছিল। এরপর মাঝিকে ম্যানেজ করে আমাকে ভয় দেখিয়ে নৌকার মধ্যেই ধর্ষণ করেছে। সারিয়াকান্দি থানার ওসির দায়িত্বে থাকা এসআই সুব্রত কুমার ঘোষ এ প্রতিবেদক-কে বলেন, থানায় মামলা হইয়াছে ও আসামীকে গ্রেফতার অভিযান অব্যহত আছে।