পরাজিত শত্রুরা এখনো দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে -পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান

59

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি: সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, অনেক খাজা-নবাব দেখেছি। কোন নবাবই দেশ স্বাধীন করেননি। তবে টুঙ্গিপাড়ার এক সাধারণ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। তিনি দেশ স্বাধীনের মাধ্যমে বাঙ্গালী জাতিকে দিয়েছেন দাসত্ব থেকে মুক্তি। তবে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করলেও এখনো পুরোপুরি মুক্ত নয়। কারণ এখনো স্বাধীনতা পরাজিত শত্রুরা দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাদের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। তাদেরকে চেনা বড় মুশকিল। তারা মুখে বলে বঙ্গবন্ধু অন্তরে করে শত্রুতা। মন্ত্রী আরো বলেন ১৫ আগষ্ট একটি কলঙ্কময় অধ্যায়। এ দিনে জাতির জনককে স্ব-পরিবারে হত্যা করা হয়েছিল। আমরা এসব হত্যাকারীদের ঘৃনা করি এবং শহীদদের রূহের মাগফেরাত কামনা করছি।

১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এসব কথা বলেন। জগন্নাথপুর উপজেলা আ.লীগ ও অঙ্গ-সংগঠনের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের র‌্যালি শেষে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ সিদ্দিক আহমদ।

জগন্নাথপুর উপজেলা আ.লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আকমল হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ.লীগের সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম, পৌর মেয়র আবদুল মনাফ, উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি আনহার মিয়া, আবদুল মালিক, আবদুল কাইয়ূম মশাহিদ, আ.লীগ নেতা ডাঃ মুজিবুর রহমান, যুক্তরাজ্যের মিডল্যান্ড আ.লীগের সহ-সভাপতি আকমল খান, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মিজানুর রশীদ ভূইয়া, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদির আহমদ মুক্তা, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব, উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান তৈয়ব মিয়া কামালী, উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুল ইসলাম, জয়দ্বীপ সূত্রধর বীরেন্দ্র, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুল, আসম আবু তাহিদ, উপজেলা আ.লীগের প্রচার সম্পাদক হাজী আবদুল জব্বার, সহ-সম্পাদক ফিরোজ আলী, পৌর আ.লীগের সভাপতি ডাঃ আবদুল আহাদ, সাধারণ সম্পাদক হাজী ইকবাল হোসেন ভূইয়া। ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা আবদুল তাহিদ, সৈয়দ মনোয়ার আলী, হাজী সুন্দর আলী, মনু মোহাম্মদ মতছির, দিপক কান্তি দে দিপাল, আবুল কয়েছ ইসরাইল, আবদুল গফুর। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন লালন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহির আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাফরোজ ইসলাম মুন্না, সাধারণ সম্পাদক শাহ রুহেল আহমদ প্রমূখ। এ সময় জগন্নাথপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র শফিকুল হক, পৌর কাউন্সিলর আবাব মিয়া, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আফছর উদ্দিন ভূইয়া সহ দলীয় নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।