ফেনীতে ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের লেমুয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত-৭

125
কালজয়ী রিপোর্ট: ঢাকা -চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের ফেনীর লেমুয়া এলাকায় কক্সবাজারগামী একটি আনন্দ ভ্রমনের বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে ধুমড়ে মুচড়ে ঘটনাস্থলে ৬ জন নিহত ও চিকিৎসারত অবস্থায় ১ জন নিহত এবং ২১ জন আহত হয়।
পুলিশ, হাসপাতাল ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, ঢাকার পল্লবী থেকে কক্সবাজার-বান্দরবানের উদ্দেশ্যে বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) ভোর রাতে ছেড়ে আসা আনন্দ ভ্রমনের একটি বাস ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের ফেনীর লেমুয়া এলাকায় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে ধুমড়ে মুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলে ৬ জন ও হাসপাতালে নেয়ার পর ১ জন নিহত হয়। আহত হয় অন্তত ২১ জন। আহতদেরকে উদ্ধার করে পুলিশ-ফায়ার সার্ভিস ফেনী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আশংকাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ১০ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে আরো ৪ জনের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদেরকেও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
নিহতদের মধ্যে ২ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন শাহাদাত হোসেন (৩০) ও সুজন মিয়া। শাহাদাতের বাড়ি ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার আধার মানিক গ্রামে। আর সুজনের বাড়ি ঢাকার বিক্রমপুরে।
আহত আজম খান বলেন, আমরা একই পরিবারের ৯জন নারায়নগঞ্জ থেকে কক্সবাজার যাচ্ছিলাম । সকালে হঠাত ঘুম ভেঙ্গে দেখি বাসের গ্লাস ভেঙ্গে রাস্তায় পড়ে আছি ।এর পর এ্যম্বুলেন্সে করে আমাদেরকে হাসপাতালে আনা হয়।
ফেনী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার ডা: মোঃ মোশারফ হোসেন জানান, সড়ক দূর্ঘটনায় ৭ জন মারা যায়। ২১ জন ভর্তি হয়। তাদের মধ্যে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ১৪ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
ফেনী মহিপাল হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহজাহান খান বলেন, বাসটি ঢাকার পল্লবী থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে যাচ্ছিল। ফেনীর লেমুয়ায় পৌঁছালে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কে পাশের গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই ৬ জন নিহত হয়। আহত প্রায় ২১ জন। আহতদের উদ্ধার করে ফেনী ২৫০শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চালকের অসর্তকতার কারনে এই দূর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারনা করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here