ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় ২০০ চামড়া গোমতী নদীতে নিক্ষপ

101
বুড়িচং (কুমিল্লা)  প্রতিনিধি: এবারের কোরবানীর পশুর চামড়ার দর পত্তন হওয়ায় ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা চরম ক্ষোভ দ্ধ। স্হানীয় লোকজন ও অভিজ্ঞ মহল মনে করেন একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে একটি মহল এধরনের কার সাজি করে ন্যায্য মূল্য থেকে গরীব এতিমদেরকে বঞ্চিত করেছে।  গত দুই যোগ ধরে চামড়ার এমন দর পত্তন কখনো দেখেনি। গরুর প্রতিটি চামড়া সিন্ডিকেটের লোকজন ২-৩ শত টাকা মূল্য নির্ধারণ করে। এতে বুড়িচং উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম গঞ্জে হাজার হাজার চামড়া আটকে যায়। এলাকাবাসী হয়ে উঠে চরম ক্ষোভদ্ধ।গত মঙ্গলবার চামড়ার দাম২-৩ শত টাকার বেশী না পাওয়ায় উপজেলায় পীর যাত্রাপুর ইউনিয়ন এর গোবিন্দ পুর গ্রামের ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ,শাহ আলম,ময়নাল হোসেন সহ আরও ২-৩ জন মিলে তাদের ক্রয় করা ২ শতাধিক চামড়া গোমতী নদীর ব্রীজের উপর ট্রাক ভর্তি করে নিয়ে  নদীতে নিক্ষেপ করে ফেলে দেয়। ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ বলেন আমরা কয়েক জন মিলে ২ শতাধিক চামড়া এলাকা থেকে সংগ্রহ করি। কিন্তু চামড়ার এমন দরপত্তন হয়েছে যা হতাশ হওয়া ছাড়া আর কিছু করার নাই।কোরবানির পশুর চামড়ার হক হল গভীর অসহায় আর এতিমদের। একটি সিন্ডিকেটের কাছে সবাই জিম্মি হয়ে গিয়ে ধরা খেলাম। তাই যে টাকা দিয়ে এলাকা থেকে চামড়া সংগ্রহ করেছি তার অর্ধেক দাম পাওয়া যাচ্চে না। এর জন্য বাদ্য হয়ে প্রায় ২৪৫ টি গরুর চামড়া আমরা তিন ব্যবসায়ী ট্রাক সহ নিয়ে গোবিন্দ পুর গোমতী নদীর ব্রীজের উপর থেকে চামড়া গুলো নদীর পানিতে নিক্ষপ করে ফেলে দেই।