শেয়ার ও ব্যাংক লুটকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে-অর্থমন্ত্রী

113

স্টাফ রিপোর্ট: রোববার ৪ঠা আগষ্ট বাংলাদেশ ব্যাংকে সরকারি বেসরকারি সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী এবং উদ্যোক্তা মালিকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী বলেন, “আমাকে একটু সময় দিন”। যারা শেয়ার বাজার লুটপাট এবং ব্যাংক খাতে দুর্নীতি করেছে তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে ৬% এবং ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৯% সুদহার বাস্তবায়নে খুব শিগগিরই বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন। এই নির্দেশনা এড়িয়ে যাওয়ার কোনো উপায় নেই বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, তবে যারা ভালো উদ্দেশ্যে টাকা নিয়েছে, ব্যবসা করতে গিয়ে লস করেছে। সুদ বেশি হওয়ার কারণে টাকা ফেরত দিতে পারেনি,তাদের বিষয়টা চিন্তা করে দেখা হবে।কিন্তু যারা মানুষের টাকা নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছে, টাকা ফেরত না দেওয়ার জন্য নিয়েছে, তাদের কে আইনের আওতায় আনা হবে।

নয়-ছয় সুদহার নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে আলোচনা হচ্ছে। বার বার তাগাদা দেওয়ার পরও ব্যাংকগুলো এটা বাস্তবায়ন করছে না। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে অঙ্গীকার করার পরও নয়-ছয় সুদ বাস্তবায়ন করেনি ব্যাংকগুলো। প্রধানমন্ত্রী কয়েকবার ক্ষোভ প্রকাশ করার পরও ব্যাংক মালিকরা ব্যাংক ঋণে সুদের হার এক অংকে নামিয়ে আনেনি।

মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা ব্যাংকারদের সাথে বসেছিলাম-এ বিষয়টি জানতে আমরা যে বাজেট ঘোষণা করেছি, তারা সেটার সাথে সংগতি রেখে চলতে পারবে কি না? তাদের সাথে আমাদের ব্যাংকিং খাত নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। ব্যাংকাররা আমাকে আশ্বস্ত করেছে, আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে ব্যাংকিং খাত ঘুরে দাঁড়াবে। তারা বলেছে খেলাপি ঋণের পরিমাণ কমবে। পাশাপাশি নয়-ছয় বাস্তবায়নের বিষয়টিও আরো এগোবে।