বইয়ের আলোয় উদ্ভাসিত হোক জীবন

87

কুবি প্রতিনিধি: বই মানুষের একমাত্র সঙ্গী যা নিঃস্বার্থ, নির্মোহভাবে পাঠককে জ্ঞান ও প্রজ্ঞা দান করে। বইয়ের রাজ্যে ডুবে থাকা একজন পাঠকও জীবন ও সমাজকে দেখেন ভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে। পাঠকের এই ভিন্নতা একটি সমাজ-দেশকে এগিয়ে নিতে অগ্রগামী ভূমিকা পালন করে। এই বোধ ও বিবেচনা থেকেই প্রথাগত পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বইপাঠে বুঁদ হতে কাজ করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাহিত্য সংগঠন ‘অনুস্বার’। একঝাঁক তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীর অক্লান্ত ও বুদ্ধিভিত্তিক পরিশ্রম ধীরে ধীরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠ্যপুস্তকের বাইরে বইমুখী করতে আগ্রহী করে তুলছে।

সাহিত্য সংগঠন অনুস্বার ক্যাম্পাসে বিভিন্ন সময়ে নানান বৈচিত্র্যময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। গল্পছবির আয়োজন, বিনামূল্যে বই প্রদান, বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে নান্দনিক দেয়ালিকা, নয় শব্দের গল্প, বুক ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতা ইত্যাদি আয়োজন মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে ক্যাম্পাসের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে।

ব্যতিক্রমতার ধারাবাহিকতায় সংগঠনটি এবার আয়োজন করেছে ‘বুক রিভিও প্রতিযোগিতা-২০১৯’। ‘স্বদর্পণে প্রিয় বই’ স্লোগান নিয়ে গত বুধবার (৩১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাডমিন্টন কোর্টে প্রতিযোগিতাটির ব্যবস্থাপনা করে সংগঠনটি।

সংগঠনের সহ-সভাপতি হিমেল দেবনাথের সঞ্চালনা ও সভাপতি শতাব্দী জুবায়েরের সভাপতিত্বে প্রতিযোগিতায় বিচারক ও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড.আহমেদ মাওলা; ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ জাহিদুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক মো: আকবর হোসেন; গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক কাজী এম. আনিছুল ইসলাম।

বুক রিভিও প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ২০ জন প্রতিযোগী অংশ নেয়। প্রতিযোগিতায় দেশ-বিদেশের স্বনামধন্য লেখকদের লিখিত কোনো বই নিয়ে ৫ মিনিটের নির্ধারিত সময়ে পর্যালোচনা করেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কাজী নজরুল ইসলাম, আহমদ ছফা, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস, বিদেশী লেখক খালেদ হোসাইনি, চিনুয়া আচেবে প্রমুখ লেখকের রচিত গ্রন্থ ছিলো প্রতিযোগীদের পছন্দে।

প্রতিযোগিতার বিচারক ও অতিথি অধ্যাপক ড. আহমেদ মাওলা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা পাঠ্যপুস্তকের বাইরে নতুন চিন্তা, উদ্ভাবনের লক্ষ্যে কাজ করবে-এমন ক্যাম্পাস আমরা চাই। সবকিছুতে আমরা ভুল মানুষের পেছনে ছুটতে ছুটতে আমরা মূল মানুষকে ভুলে যাই। বই আমাদের সেইদিকে ফিরিয়ে নেয়।’

অতিথিরা তাদের বক্তব্যে বলেন, ‘বই পর্যালোচনার মূল উদ্দেশ্য হলো বই বা লেখক সম্পর্কে এমন কিছু তথ্য উপস্থাপন করা যাতে অন্যদেরও সেটি সম্পর্কে আগ্রহী করে। এই প্রতিযোগিতা সেই বোধটুকু ধারণ করেছে।’

প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয় তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে যথাক্রমে ফারিদ মুস্তাকিম (নৃবিজ্ঞান, নবম) সাবরিনা আলম (ব্যবস্থাপনা শিক্ষা, দ্বাদশ) ও তাইয়্যেবুন নাহার মিমি (বাংলা, নবম)। বিজয়ীদের হাতে সংগঠনের পক্ষ থেকে সনদপত্র ও পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ও অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভাপতি শতাব্দী জুবায়ের জানান,।