মালিকানাধীন জমিতে রাস্তা নির্মানের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের নামে মামলা

65

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: যশোরের চৌগাছায় ভৈরব নদী খননকালে অতিরিক্ত মাটি ব্যক্তিগত ফসলি জমির উপর রাখা হয়। সে সময় মাটি সরিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি থাকলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান পরে তা দখল করে রাস্তা নির্মানের কাজ চালাচ্ছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে জমির মালিক ও গ্রামবাসী স্থানীয় জগদীশপুর ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বিচার দেন। বিচার না পেয়ে বাধ্য হয়ে যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে চৌগাছা থানার ওসিকে সরেজমিনে তদন্ত করে প্রতিবেদন প্রদানের জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন।

গ্রামবাসী ও মামলার নথি থেকে জানা গেছে, সম্প্রতি ভৈরব নদী খননকালে উজেলার কান্দি গ্রামে অতিরিক্ত মাটি নদীর উত্তর পাশে গ্রামের ৩’ শতাধিক কৃষকের ফসলী জমিতে রাখা হয়। সে সময় কৃষকরা তাদের কৃষি জমিতে নদী খননের মাটি রাখতে বাধা দেয়। খননের কাজ চালিয়ে যেতে মাটি সাময়িকভাবে রাখা হচ্ছে বলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তবিবর রহমান খান তাদের প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু বর্তমানে তাদের এসব ব্যক্তিগত ফসলি জমির উপর দিয়ে ৩০/৩৫ ফুট চওড়া ও ৫’শ ফুট দৈর্ঘ্যরে কাচা রাস্তা নির্মানের কাজ শুরু করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান তবিবর রহমান খান। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে কান্দি গ্রামের ওয়ালিয়ার রহমানের ছেলে ইউনুচ আলী গত ০৮/০৭/১৯ তারিখে যশোরে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং পি-৭১৫/১৯। মামলার সাথে গ্রামের ৩৬৫ ব্যক্তির গণস্বাক্ষর সম্বলিত আবেদনও জমা দেয়া হয়েছে।
মামলার বাদী ইউনুচ আলী অভিযোগে উল্লেখ করেন উপজেলার কান্দি গ্রামের ৭৫ নং মৌজায় ২৫০, ১৭২, ৩৩৯, ৩৭৮ আর এস খতিয়ানে ২৫২০, ২৫২২, ২৫২৬, ২৫১৮, ২৫২৩, ২৫৩৫, ২৫৩৬, ২৫৩৪ নং দাগে মোট ৮৪ শতাংশ জমি জবর দখল করে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মানের কাজ চালাচ্ছেন চেয়ারম্যান তবিবর রহমান খান।

মামলার বাদি ইউনুস আলী বলেন আমরা গত ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে এসব জমি ভোগদখল করে আসছি। জমির কাগজপত্রের রেকর্ড আমাদের নামে। হঠাৎ করেই আমাদের ফসলি এই জমির উপর দিয়ে অন্যায়ভাবে রাস্তা নির্মান করা হচ্ছে। তবে বিষয়ে জানার জন্য জগদিশপুর ইউপি চেয়ারম্যান তবিবর রহমান খানের ০১৭৩৪-৯৮৭৯৮৭ মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here