কৃষক বাঁচুক 

111
কৃষক বাঁচুক
-নূরুল আলম আবির
কলমী লতার ফুলে
দিয়েছে এসে চুমি দেখ ওই শিশির জলে।
বনফুলের হাসি দেখে হায়
হৃদয় আমার শুধু দিশা হারায়।
কচি সবুজের তটে এ রূপসী বাংলার কোলে
দিনশেষে চোখ বুঝে মরে যেতে চাই বলে
আমি ছুটে যাই ভেসে যাই ওই শাপলার সুখে
ওই পদ্ম জলে কাটি সাঁতার স্বপনেরও বুকে।
উদাস দুপুরে রাখালের বাঁশি বাজে ওই গাঁয়
কৃষক ছোটে মাঠে, আগামীর সে বীজ বুঝে যায়।
কৃষাণ বধূও যায় ওই মাঠের বুকে ছুটে
তার প্রাণের কৃষক যেথায় আছে মাঠের তটে।
আঁচলে বেঁধে প্রেমভরা সব মজার খাবার
নিজ হাতে খাইয়ে ফিরে সে নিজ গৃহে আবার।
কিছু দিন-মাস পেরিয়ে সোনালী ফসল আসে যখন
স্বপ্নের আগমনে হৃদয় ভাসিয়া হাসে সুখের লগন।
এ হাসি হোক চির হাসি— এ বাংলার সব কৃষকের
কৃষক বাঁচুক, ভালো থাকুক তারা— আপন আমাদের।।
রচনাঃ
১৮ জুলাই ২০১৯ ইং