সরাইলে খালে বাঁশ “রাস্তা- মাঠে পানি” জলাবদ্ধতা জনসাধারনের ভোগান্তি! 

94
মোঃ তাসলিম উদ্দিন: এ কথা মানতে রাজি না কারণ আজদেখলাম যে খাল ভরাটে মুল সুতা সেআজ রাস্তার জলাবদ্ধতায় পড়েছে। এ যেন খাল দিয়ে চলাচল করছে যানবাহন, আসলে খাল নয় সরাইল উপজেলার অন্নদা স্কুলের মোড় যা সিএনজি ষ্ট্যান্ট  সামনের রাস্তার অবস্থা। যেখানে একটু বৃষ্টি হলেই জমা হয় সমান পানি। সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। যার ফলে যান চলাচলের বিজ্ঞ ঘটে। যেমনী যানবাহন চলাচলের অসুবিধা তেমনী সরকারি অন্নদা,সরাইল পাইলট বালিকা স্কুলের শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীদের আশা-যাওয়াসহ পথচারিরা পরেন বিরম্ভনায়।রাস্তার পাশে  ড্রেন থাকা সত্তেও পানি নিষ্কাষন হচ্ছে না।উচালিয়া পাড়ার ও অন্নদা সরকারি স্কুলের সামনের রাস্তাই  বাজার সামনের মোড়সহ  এলাকার বিভিন্ন স্থানে সামান্য বৃষ্টি হলেই তৈরি হয় জলাবদ্ধতা।অটো ড্রাইভারা বলেন, সামান্য বৃষ্টিতেই এই স্কুলের সামনের রাস্তায় হাটু সমান পানি জমা হয়। প্রায় ৪-৫ ঘন্টা পরে কমতে থাকে। যার কারনে আমাদেরও অটো চালাইতে সমস্যা হয়, ইঞ্জিন পর্যন্ত পানি ছুয়ে যায়। স্কুলের কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রীরা বলেন, বৃষ্টির সময় আমাদের স্কুলের রাস্তা প্রচুর পানি জমে থাকে যার ফলে পানির মধ্যে দিয়ে স্কুলে আসতে হয়। আমাদের জামা-প্যান্ট ভিজে যায়।আমরা রাস্তার পাশে খাল উদ্বারের দাবী জানাচ্ছি উন্নয়ন কামনা করছি। এ দিকে  বৃষ্টির পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা বন্ধ তাই সরাইল- নাচিরনগর রোড়ের পাশে মাদরাসার মাঠে হাঁটু পানি, বড্ডা পাড়া – বড়দেওয়ান পাড়া, বনিক পাড়াসহ জলাবদ্ধতা বছর পর বছর যার ভোগান্তি এলাকাবাসী ভোগ করছে।এ দিকে এলাকাবাসী দাবী করেন, সরাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের উওর পুর্ব পাশ হতে নিজ সরাইলের ব্রিজ পর্যন্ত বড্ডা পাড়া গরু বাজার হতে খালটি দখল  মুক্ত করে, খালটি পুর্ণ খনন করে পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা গ্রহন করতে সংলিষ্ট কৃর্তিপক্ষের সুুুুদৃষ্টি কামনা করে।