যে কোন সময় সিসি রাস্তাটি ভেঙ্গে বিলিন হয়ে যেতে পারে

89

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ দক্ষিণপাড়ে গত শুক্রবার বালিশ্রী গ্রামে বেরী বাঁধ ভেঙ্গে কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পাশের গ্রাম আলমপুরে কয়েকটি স্থানে গত ২দিন ধরে বন্যার পানি প্রবাহিত হচ্ছে। স্থানীয়রা বলার পরও কাজ করছেন না স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যরা এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, উজান থেকে নেমে আসা পানি ও বৃষ্টিতে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে নদীর র্তীরবতি কয়েকটি গ্রামের রাস্তায় উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ইতিমধ্যে বালিশ্রী গ্রামের একটি বেরীবাঁধ ভেঙ্গে গেছে। এই বাঁধ ভাঙ্গায় রানীগঞ্জ দক্ষিণ পাড়-রৌয়াইল বাজারের সহ আশে পাশে কয়েকটি গ্রামের কয়েক হাজার জনসাধারন চলাচল করতে পারছেন না। পানি বন্ধি হয়ে পড়েন কয়েকটি গ্রামের মানুষ। আলমপুর গ্রামে গত ২দিন ধরে পানি প্রবাহিত হওয়ার পর স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের জানানোর পরও কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন না।

নাম প্রকাশে অনুচ্ছিক একাদিক ব্যক্তি জানান, বর্তমান সরকারের উন্নয়ন ধারাবাহিকতায় রানীগঞ্জ দক্ষিণপাড়-আলমপুর গ্রামে সিসি ডালাইয়ের কাজ হয়েছিল, কিন্ত বর্তমান সময়ে রাস্তাটি রক্ষার জন্য মাত্র ৮ থেকে ১০জন লেবার দিয়ে কাজ করালে রক্ষা হত মূল্যবান রাস্তাটি।

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য বজলু মিয়া সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, গত বছর বন্যার সময় ২টি বেরী বাঁধে কাজ করেছি। কিন্ত ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ থেকে কাজের টাকা দেওয়া হয় নাই। এবার কোন বিশ্বাসে কাজ করাবো। তারপরও গ্রামের লোকদের নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবো।এব্যাপারে জানতে রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোনে তাঁকে পাওয়া যায়নি।