১ সহপাঠীকে পিটিয়ে জখম করলো সহপাঠী

118

সোহাগ হোসেন: পটুয়াখালীর দুমকিতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রবিউল ইসলাম (১৪) নামের দশম শ্রেণীতে পড়–য়া এক নিরীহ ছাত্রকে বে-ধরক পিটিয়ে জখম করেছে ৫বখাটে সহপাঠীরা। রবিউল ইসলাম ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করেছে। গত সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে দুমকি একে মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পেছনের সড়কের চৌরাস্তায় এ হামলার ঘটনাটি ঘটে।

আহত রবিউল ইসলামের পিতা দুমকি গ্রামের বাসিন্দা মজিবর ফকির অভিযোগ করে জানান, দুমকি একে মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে অধ্যায়নরত ঝাটরা গ্রামের রহিম হাওলাদারের ছেলে শামীম (১৫), সোবাহান মৃধার ছেলে রাকিব মৃধা (১৪), পিরতলা বাজারের দিপক কর্মকারের ছেলে দিপ্ত কর্মকার (১৪), বাহেরচর গ্রামের জয়নালের ছেলে নাঈম (১৫) ও শ্রীরামপুর গামের জলিল তালুকদারের ছেলে শামীম (১৫) সহ ৫বখাটে ছাত্র একই স্কুলের ভকেশনাল শাখার কোন ছাত্রের সাথে কথা বলা যাবেনা অযুহাতে তাঁর নিরীহ ছেলে রবিউল ইসলামকে স্কুলের ক্লাশ শেষে বাড়ি যাবার পথে রাস্তায় ফেলে সিনেমা স্টাইলে বে-ধরক পিটিয়ে অজ্ঞান করে ফেলে। স্থানীয় লোকজন ডাকচিৎকার শুনে ছুটে আসলে বখাটেরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে রবিউল ইসলামকে আহত অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। বখাটের এলোপাথারী গণপিটুনীতে রবিউলের মাথা, বুকে-পিঠে ও শরীরের নিম্নাঙ্গে রক্তজমাট, দগদগে ফুলা জখম হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত ৫বখাটের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গে কাছে বিচার চাইলে তারা অপারগতা প্রকাশ করে আইনগত পদক্ষেপের জন্য দুমকি থানায় অভিযোগের পরামর্শ দেন। উল্লেখ্য, অভিযুক্ত ওই ৫বখাটের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ক্লাশের ছাত্রীদের উত্যক্ত করা, রাস্তাঘাটে বেহেল্লাপণা, আড্ডাবাজি, ক্লাশ ফাঁকি দিয়ে সিগারেট খাওয়া ও গাঁজা-নেশার ট্যাবলয়েট সেবনের অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুমকি থানায় লিখিত একটি অভিযোগ করা হয়েছে। দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মনিরুজ্জামান অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।