দায় নিচ্ছে না ফার্মসী অনুষদের চার বিভাগও

66
সিনজাত রহমান সানি: বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সাতটি প্যাকেটজাত (পাস্তুরিত) দুধসহ ৭২টি খাদ্যপণ্য নিয়ে সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসি বিভাগের কয়েকজন শিক্ষক যে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন, ওই প্রতিবেদনের দায় নিচ্ছে না খোদ ফার্মেসি বিভাগই। এরআগে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্র‌তিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্যও গতকাল বলেছেন, ঢাবি শিক্ষকদের ওই রিপোর্ট মিথ্যা।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে গত বুধবার  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী অনুষদ ও ফার্মেসী বিভাগের বরাতে তেল, দুধ ও মসলা সহ ৭১টি খাদ্যপন্যের মান সংক্রান্ত গবেষণা প্রতিবেদন এবং বৃহস্পতিবার  পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের গবেষনা ফল মিথ্যা” মর্মে যে বক্তব্য মহান জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেন তার প্রেক্ষিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী অনুষদভুক্ত চার বিভাগ যথাক্রমে ফার্মেসী, ফার্মাসিউটিক্যাল কেমিষ্ট্রি, ক্লিনিক্যাল ফার্মেসী এন্ড ফার্মাকোলজি ও ফার্মাসিউটিক্যাল টেকনোলজি বিভাগের পক্ষ থেকে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তাই আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অাজ রবিবার ফার্মসী বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার, ফার্মাসিউটিক্যাল কেমিস্ট্রি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ খালিদ হোসেন,ক্লিনিক্যাল ফার্মেসী এন্ড ফার্মাকোলজী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ শওকত আলী ও ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সৈয়দ সাব্বির হায়দার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞাপতিতে এসব বলা হয়।

বিজ্ঞপতিতে অারও বলা হয়,বিভিন্ন গণমাধ্যমে খাদ্যপন্যের মান সংক্রান্ত যে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, তা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী অনুষদভুক্ত বিভাগসমূহের পক্ষ থেকে করা কোনো আনুষ্ঠানিক গবেষণা নয়। এটি মূলত অত্র বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের একান্ত ব্যক্তিগত গবেষণালব্ধ রিপোর্ট হওয়ায় উক্ত গবেষনার সাথে অনুষদভুক্ত বিভাগসমূহের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তাই এ ব্যাপারে আমরা কোনো প্রকার দায়িত্ব নিতে পারি না।

এমতাবস্তায় সরকারের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা ও জনমনে খাদ্যপন্যের মান সংক্রান্ত প্রতিবেদন নিয়ে যে বিভ্রান্তি ও আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে তার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও সামগ্রিক বিষয়ে প্রত্যেককে তাদের অবস্থান থেকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের জন্য উদাত্ত আহবান জানাই।