চিতলমারীতে মেধাবী স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

233

বিভাষ দাস: বাগেরহাটের চিতলমারী হাসিনা বেগম মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টমশ্রেণীর এক শিক্ষার্থী সিলিং ফ্যনের সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায়ফাঁস দিয়ে আত্মহত্য করেছে। সোমবার (১৭জুন) সকাল ১০টায় উপজেলার খড়মখালী গ্রামের নিজ বাড়ীতে সে আত্মহত্য করে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কালশিরা রাজেন্দ্রস্মৃতি মাধ্যমিক বিদ্যলয়ের শিক্ষক প্রভাত মজুমদারের জ্যেষ্ঠ কন্যা তৃষা মজুমদার সোমবার সকালে প্রাইভেট পড়ে এসে ১০টায় নিজবাড়ীতে তার শয়নকক্ষে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না বেঁধে গলায়ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। তার মা গত পরীক্ষায় অংক পরীক্ষা ভাল হয়নি বলে চাপ সৃষ্টি করে বাড়ীতে বসে সারাদিন অংক করতে বলে যায়। সবার ধারনা হয়তে নিরব অভিমানে বা চাপে তৃষা আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। প্রতিবেশিরা জানা, তৃষা খুব আত্মকেন্দ্রীক মেয়ে ছিল। কারো সাথে তেমন মিশতো না। মেধাবী তৃষা পঞ্চ শ্রেণিতে ট্যালেণ্টপুলে বৃত্ত পেয়েছিল। সে চিতলমারী হাসিনা বেগম মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টমশ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী । তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

তৃষার মৃত্যুর সংবাদ শুনে চিতলমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অশোক কুমার বড়াল, তার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শৈলেন্দ্রনাথ বাড়ৈ, চিতলমারী ক্লিনিকের পরিচালক ডাঃ ফারুক আহমেদ সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজন সেখানে ছুটে যান। তারা শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের শান্তনা দেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই ছাত্রীর মৃত্যুর কারন জানা সম্ভব হয়নি। চিতলমারী থানার অফিসার ইনচার্জ অনুকুল সরকার জানান তৃষার আত্মহত্যার খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে এসআই মোস্তাক সহ সঙ্গীয় ফোর্স পাঠিয়েছি। এব্যাপারে থানায় ১৭-০৬-১৯ তারিখে ১৬ নং অপমৃত মামলা হয়েছে।