সন্তানদের অবহেলায় মৃত্যুর প্রহর গুনছে বাবা

192

মো: সাইফুল ইসলাম: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সন্তানদের অযত্ন অবহেলায় বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর প্রহর গুনছে মানুষ গড়ার কারিগড় ইয়াছিন মাষ্টার (৬৫) নামে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষক ও পল্লী চিকিৎসক।

পাকা ঘরবাড়ি ধানের জমি পেনশনের সব টাকা কৌশলে নিজেদের নামে লিখে নিয়ে চলে যায় তার তিন ছেলে মো:সোহেল মিয়া (৪০) মো:সাহিল মিয়া (৩৮) ও মো:রাসেল মিয়া (৩৬) নামে তিন পাষন্ড সন্তান

এ অবস্থায় তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা কামনা করছেন তার সাথে থাকা তার এক মাত্র পুত্র বধু মোছা: মিনা বেগম।তার গ্রামের বাড়ি আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের ধাতুর পহেলা গ্রামে।

তার পুত্র বধু ও প্রতিবেশীরা জানায় ইয়াছিন মাষ্টারের তিন ছেলে কিন্তু মেয়ে নেই স্ত্রী মারা গেছে অনেক আগেই। তিন পুত্র সন্তানের কথা ভেবে বিয়ে করেননি তিনি। ছেলেদের লালন পালন করে লেখাপড়া শিখিয়ে স্বাবলম্বী করেছেন। ছেলেরা বিয়েও করেছে অবসর গ্রহনের পর ছেলেরা কৌশলে বাড়ি ঘর জমি ও পেনশনের টাকা নিজেদের নামে লিখে নিয়ে যায়।

পরে ব্রেইন স্টোক করে ইয়াছিন মাষ্টার অসুস্থ হয়ে পড়লে ছেলেরা চিকিৎসা করতে অপারগতা প্রকাশ করে।চিকিৎসার জন্য সম্পতি ফিরত চাইলে তারা তাকে ফেলে বাড়ি থেকে চলে যায়।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার আ:আউয়াল জানান তিনি বিগত আট বছর দরে অসুস্থ হয়ে বিছানায় পরে আছেন তার প্রবাসী সন্তানরা তার কোন খবর নিচ্ছেননা বরং তারা সকল সম্পতি নিজেদের নামে লিখিয়ে বাড়ি থেকে চলেগেছে।

বিনা চিকিৎসায় ইয়াছিন মাষ্টার এখন মৃত্যুর সাথে লড়াই করে চলছেন। তার শরীরের মাংসে পোকা ধরেছে কিন্তু অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেননা তার সাথে থাকা এক মাত্র পু্ত্র বধু মিনা বেগম।তাই তিনি শশুরকে বাঁচাতে তার চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যর আবেদন জানিয়েছেন।

সাহায্যের জন্য ইয়াছিন মাষ্টারের পুত্রবধু মিনা বেগমের সাথে যোগাযোগের ফোন বা বিকাশ নম্বর – ০১৭৪২৫১৯০০৭।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here