শুরু হয়েছে”চার-ছক্কা”ডিজিটাল জুয়া 

123

মোঃ তাসলিম উদ্দিন: ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইলে   ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপকে ঘিরে শুরু হয়েছে জুয়ার আসর। এ জুয়ার লাভবান হচ্চে এক শ্রেণির লগনী বা সুদী নামে ব্যবসায়ীরা, জুয়ার কারনে পথে বসতে হয় অনেক পরিবারের, উপজেলার সদর এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে এসব আসর বসছে। স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্র ও তরুণ-যুবক থেকে শুরু করে প্রায় সব বয়সী মানুষ ক্রিকেট জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। কেউ কেউ জুয়ার নেশায় সর্বস্ব হারাতে বসেছে।উপজেলার বিভিন্ন এলাকারবাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপকে ঘিরে এলাকায়  ক্রিকেট জুয়ার বিষয়টি আলোচনায় আসে।  ৩০মে থেকে  ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপে জুয়া নিয়ে সরাইল উপজেলার বিভিন্ন জাগায় ছড়িয়ে পড়ে। ক্রিকেট জুয়া নিয়ে মেতে উঠেছে জুয়াড়িরা। এবার শুরু হয়েছে ভয়াবহ চিত্র। রিকশা শ্রমিক থেকে শুরু করে স্কুল-কলেজ পড়ুয়াসহ নানা শ্রেণির নানা বয়সী মানুষ ক্রিকেট বাজির সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। এই জুয়ার কারণে কেউ কেউ নিঃস্ব হতে বসেছে। অনেকে আবার বিভিন্ন সমিতি থেকে চড়া সুদে ঋণ নিয়ে বাজি ধরে সব খুইয়েছে।জুয়াড়িদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিভিন্ন সাংকেতিক ভাষায় জুয়া খেলা চলছে। প্রতি ওভারে রানের ওপর, কোন খেলোয়াড় বেশি রান করবে, কোন বোলার বেশি উইকেট নেবে, কোন দল জিতবে এসবের ওপর বাজি ধরা হচ্ছে। জুয়ার টাকা নগদে বা মোবাইলে লেনদেন হচ্ছে।মঙ্গল  বার সরাইলের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ক্রিকেট জুয়ার ভয়াবহ চিত্র পাওয়া গেছে।সরাইল সদর এলাকায় প্রতিদিন মোটা অঙ্কের টাকা হাত বদল হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাজারের এক ব্যবসায়ী জানান, বিভিন্ন এলাকা থেকে নানা বয়সী মানুষ বাজারে জুয়া খেলতে আসে। এর মধ্যে বেশির ভাগ কিশোর ও তরুণ।সূত্র মতে,বিশ্বরোড় মোড়ে, আলীনগর মোড়ে, হাসপাতাল মোড়ে, বড্ডা পাড়া গরু বাজার, বনিক পাড়ার মোড়ে, সকাল বাজার, বিকাল বাজার, কালিকচ্ছ বাজার, শাহবাজপুর একাদীক মোড়ে, চুন্টা ও অরুয়াইল এলাকায় নিয়মিত এসব আসর বসছে। এ ছাড়া বিভিন্ন হাটবাজারে চলছে জুয়া। এলাকার চায়ের দোকানে থাকা টেলিভিশন ঘিরে জুয়াড়িরা ভিড় করে থাকে।রাতে- দিনে খেলা শুরুর সঙ্গে সঙ্গে বাজি ধরা শুরু হয়।পুরো ম্যাচের উপর ধরা হয় বোনাস ভিত্তিক জুয়া,তবে বেশির ভাগ বাজি ধরা হয় ওভারের চার ও ছক্কা নিয়ে। এই বাজি ধরা নিয়ে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকা হাত বদল হচ্ছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।সরাইল থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মফিজ উদ্দিন ভুঁইয়া বলেন,বিষয়টি আমার জানা ছিল না। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here