ঈদ আনন্দ নন্দন পার্কে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভির!

224

তৌকির আহাম্মেদ: ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পরিবার-পরিজন নিয়ে সাভারের আশুলিয়ায় নন্দন পার্কে বিনোদন প্রেমি দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভির। ঈদের দিন সকাল থেকেই আশুলিয়ার বাড়ইপাড়া এলাকায় অবস্থিত এই পার্কে ঈদ উৎসব উপভোগ করতে আসতে থাকে হাজার হাজার মানুষ। তাদের পদচারনায় মুখরিচিত হয়ে উঠে পুরো পার্ক এলাকা। ছোট-মাঝারি-বড় সব বয়সী বিনোদনপ্রেমি দর্শনার্থীদের জন্য বিভিন্ন রকমের রাইডগুলোও ছুটে চলছে আপন গতিতে। মজার মজার বিভিন্ন রাইডে চড়ে আর নেচে-গেয়ে মাতিয়ে তুলছে তারা পুরো এলাকা। আবার পারিবারিক বিনোদনের সব ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। নগর জীবনের কোলাহল থেকে একটু বিনোদন পেতে যান্ত্রিক কোলাহলের শৃঙ্খলা ভেঙ্গে ঈদ উৎসবকে বরণ করে নিতে পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেকেই ছুটে এসেছেন এই পার্কে। দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে থেকেও শিশু কিশোর-বৃদ্ধ সবাই ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে আসছেন এখানে। প্রতিবারের মতো এবারও বিনোদন কেন্দ্রে দর্শনার্থীর জন্য রাখা হয়েছে নতুন চমক। এবার ঈদ উপলক্ষে বিনোদন প্রেমি দর্শনার্থীদের জন্য তিনটি আইটেম সংযোজন করা হয়েছে। আইটেম গুলো হচ্ছে ভার্চুয়াল,এ্যায়ার সাইকেল ও ডিজে। গরম আর রোদে বৃষ্টি উপেক্ষা করে একটু প্রশান্তির পরশ পেতে এ পার্কের পানির রাজ্য ঘিরেই দর্শনার্থীদের ভিড় লক্ষ্য করা যায়। তাই সকাল থেকেই নন্দন পার্কে জনস্রােত নামে।

যুক্তরাজ্যে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশী বিনিয়োগকারীদের অর্থায়নে নন্দন গ্রুপ এবং ভারতের বৃহত্তম পার্ক পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান নিকো পার্কস অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেডের সাথে যৌথ উদ্যোগে এই পার্ক প্রতিষ্ঠিত। রাজধানী ঢাকার নিকটে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে বিকেএসপি ও চন্দ্রার মাঝামাঝি সাভারের বাড়ইপাড়ায় ৮০ বিঘা জায়গা নিয়ে এ পার্ক অবস্থিত। এছাড়াও নন্দন পার্ক দর্শনার্থীদের মনের আবেগ, অনুভূতি ও চাহিদা উপলব্ধি করে সংযোজন করছে নিত্যনতুন রাইড। এরই ধারাবাহিকতায় নন্দন পার্ক অ্যাডভেঞ্চার জোনে সংযোজন করেছে রোমাঞ্চকর ও দুঃসাহসিক রাইডগুলো, যা বর্তমান যুগের উদ্যমী ও প্রাণচঞ্চল তররুণ-তরুণীদের কাছে এক আনন্দপূর্ণ ও আকর্ষণীয় রাইড হিসেবে সুপরিচিতি লাভ করেছে। আর বিনোদনপ্রেমি দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করতে কর্তৃপক্ষও রেখেছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। তবে নন্দন পার্কটির বিশেষত্ব হচ্ছে সবুজের সমারোহ। হাটতে হাটতে ক্লান্ত হলে/জিরিয়ে নিয়ে বসতে পারেন ঘাসের সবুজ গাঁলিচাতে।শুধু সবুজের সমারোহ নয় দুর-দুরান্ত থেকে আসা বিনোদনপ্রেমীদের জন্য রয়েছে দৃষ্টি নন্দিত নন্দন ভিলেজ। এখানে পাওয়া যাবে গ্রামের সবুজ মনোরম পরিবেশে থাকার সুবিধা।

 

রয়েছে পাঁচটি কটেজ। প্রতিটি কটেজের কক্ষের সঙ্গে রয়েছে বাথরুম, ওয়াইফাই, টিভি ও স্যাটেলাইট। এছাড়াও রয়েছে এক সাথে ৩০ জন বসার একটি রেস্টুরেন্ট ও সম্পূর্ন ফ্রিতে গাড়ী পার্কিং সু্িবধা। ড্রাইভারদের জন্যও রয়েছে স্বল্পমূল্যে থাকার ব্যবস্থা। ব্যাটমিন্টন খেলার সুব্যবস্থা ও পুল রুম পাশাপাশি চার রুমের ফ্যামিলি কটেজও রয়েছে এ পার্কটিতে। এছাড়া, অন্তর্জাতিক মানের রাইড, মানসম্পন্ন খাবারের দোকান ও প্রাকৃতিক পরিবেশ সত্যিই বিনোদন প্রেমীদের বারবার নন্দন পার্কে আসার ইচ্ছা আরো বাড়িয়ে দেয়। এখানে রয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও হকারমুক্ত পরিবেশ। ঢাকার উত্তরা থেকে নন্দন পার্কে ঘুরতে এসে প্রিয়াংকা বলেন, সময়টাকে বেশ উপভোগ করছেন বলে জানালেন তিনি। ঢাকার গুলশান থেকে ঘুরতে আসা আব্দুল মতিন বলেন, অবরুদ্ধ পরিবেশ থেকে নন্দন পার্কে খোলামেলা জায়গায় খুব ভালো লাগছে। শহরে জীবন থেকে খানিক রিলাক্স।

তিনি আরো বলেন, বাপ-ছেলে খুবই মজা করেছি যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। একই মনোভাব জানালেন গাজীপুর থেকে আসা সুমন মিয়া। ঢাকা থেকে আসা মেহেদি হাসান মুন্না বলেন, পার্কটির সৌন্দর্যে মুগ্ধ ও ঘুরে বেড়িয়ে অনেক মজা করলাম, দারুন লাগছে। একই কথা জনিয়ে সাভার থেকে বেড়াতে আসা রায়হান, ফাহিম, রাকিব, আলভি ও রাহুলসহ কয়েকজন যুবক বলেন, তারা প্রায় কয়েক বছর যাবৎ ঈদ উৎসব পালনের জন্য সব বন্ধুরা মিলে নন্দন পার্কে আসেন। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নন্দন পার্কের ভেতরে প্রবেশ করেছেন। সব বন্ধুরা মিলে নন্দন পার্কের ওয়াটার ওয়ার্ল্ডে প্রায় দুই ঘন্টা গোসল করে কাটিয়েছেন তারা। এই পার্কের ওয়াটার ওয়ার্ল্ডের জায়গা অনেক বড়ো হওয়ায় তারা স্বাচ্ছন্দে গোসল করতে পারেন। এছাড়াও নন্দন পার্কের ওয়াটার ওয়ার্ল্ড অনেক আনন্দ উপভোগ করেছে বলে তারা জানায়।নন্দন পার্কের ডেপুটি ম্যানেজার মার্কেটিং মো: মেজবাহ উদ্দিন বলেন, তাদের পার্কে সব রাইডসে ভির রয়েছে। তবে ওয়াটার কোস্টার, প্যাডেল বোট, কিডস ড্রিম ওয়ার্ল্ড, ওয়াটার ওয়ার্ল্ডসহ বেশ কয়েকটি রাইডসে দর্শনার্থীদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষার পর চড়তে হচ্ছে।

নন্দন পার্কে আকর্ষনীয় রাইডগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্যাবল কার, ওয়েব পুল, জিপ স্পইড, রক ক্লাইমরিং, রিপলিং, মুন রেকার, কাটার পিলার, ওয়াটার কোস্টার, আইসল্যান্ড, প্যাডেল বোট, কিটস ড্রিম ওয়াল্ট। নন্দন পার্কের হেড অব অপারেশন মাসুদ রানা জানান-এবার ঈদ উপলক্ষে তিনটি আইটেম সংযোজন করা হয়েছে। এবং দর্শনার্থীদের জন্য করা নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।