মহৎ পেশায় জিবনের ঝুকি নিয়ে সাংবাদিকগন

92
মোঃ রেজওয়ান আলী ঃ বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর থেকে কোন রকম বিনিময় ছাড়াই সাংবাদিক গন সবচেয়ে বেশি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশ ও জনগনের কল্যাণে কাজ অব্যাহত রেখেছেন ।বাংলাদেশের মানুষ শান্তি প্রিয় হলেও বর্তমান সময়ে প্রেক্ষাপটে রাস্তা-ঘাটে চলাফেরা অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে। সাংবাদিকরা তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালন করেও তেমন ভাবে কারো মন তুষ্ট করতে পারেন না, যদি কখনও একটু সামান্য তম ভুল করলে সাংবাদিকদের ক্ষমা করা হয় না, হামলা, মামলার শিকার হচ্ছেন অনেক প্রকৃত সাংবাদিক।বর্তমানে দেশের জনগণ প্রায় ১৮ কোটি, সেই তুলনায় আইনশৃঙ্খা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও সাংবাদিক অনেকাংশে কম লক্ষ করা যায়।শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানাই তাদেরকে, যারা মানুষ ও দেশের কল্যাণে কাজ করেন জীবনের ঝুঁকি বিদ্যমান আছে জেনেও। কারণ অনেক সাহসী ভুমিকায় যারা দেশ ও জনগণের নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করছেন তারা কিন্ত সাধারণ মানুষ নয়। বিশেষ করে “পুলিশ,ও সাংবাদিক” আইনজীবি ও জনপ্রতিধিগণ এরকম অনেকেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জনগণের নিরাপত্তায় সেবামূলক কাজ করেন।
এই চারটি শব্দের মধ্যে একটি বেশি ঝুঁকিপূর্ণ তা হল কলম সৈনিক অর্থাৎ সাংবাদিক/সংবাদ কর্মীরা এখন নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন মর্মে জানা যায় ।বিশেষ করে “কলম সৈনিক অর্থাৎ সাংবাদিক” দেশ ও জাতির বিবেক বলে থাকেন অনেকেই কিন্ত এই শব্দটি পবিত্র, এ শব্দটিকে অনেকেই অপমান করে থাকেন, কিন্ত কেন ?। সাংবাদিকরা নিজের পরিবারের সকলের কথা চিন্তা না করেই নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালন করে থাকেন এর বিনিময়ে সমাজ, দেশ ও জাতির কাছ থেকে কি পাচ্ছেন বলুনতো ? “সাংবাদিক দম্পতি সাগর রুনি, সিরাজগঞ্জের শ্যামল, পাবনার সুবর্ণা নদী নারী সাংবাদিকসহ অনেক সাংবাদিক হত্যার শিকার হয়েছেন, এসব হত্যার বিচার কবে হবে ?’।বর্তমানে সাংবাদিকরা অনেকেই হামলা, মামলার শিকার হচ্ছেন কিন্ত হামলাকারী বা হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা হলেও তার বিচার হচ্ছে না ? সাংবাদিকরা কি যুগে যুগে এমনই অবহেলিত থাকবে ? নির্যাতনের শিকার হবেন? কলমও একটি অস্ত্র তার সঠিক প্রয়োগ হবে কি রুপে’?।ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিটি’র সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম হেলাল শেখসহ কয়েকজন সিনিয়র সাংবাদিকরা আলাপকালে একটি বিষয় উঠে আসছে যে, অনলাইন সংবাদপত্র বা পত্রিকার সাংবাদিকরা‘ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে থাকেন কিন্ত তাদেরকে নিয়ে যারা খারাপ মন্তব্য করেন, এটা মোটেই ঠিক জাতির জন্য লজ্জার বিষয় নয় কি ।কেউ মায়ের গর্ভ হতে কাজকর্ম শিক্ষা গ্রহণ করে না। অনেক কষ্টের বিনিময়ে সাংবাদিকতা ও প্রকৃত সেবক হন আর যদি সেই সাংবাদিককে কেউ অপমান করেন তা সম্পর্ণরূপে জাতির জন্য সত্যি লজ্জাজনক বলে সাংবাদিক নেতারা অভিমত প্রকাশ করেন। নেতারা বলেন, সাংবাদিকতা শিখতে হলে বই পড়তে হয়, পাঁচটি বিষয় জানা খুবই দরকার-তাহলো, ১ কি, ২ কখন, ৩ কোথায়, ৪ কিভাবে, ৫ কেন ? সেই সঙ্গে চারদিকে চোখ কান খোলা রেখে কাজ করতে হয় “পুলিশ, সাংবাদিক, আইনজীবি ও জনপ্রতিনিধিদের সচেতন ও সাবধানতায় কাজ করতে হয়, আর তা না হলে দায়ভার তার নিজের ও দেশের সরকারকেও বহন করতে হতে পারে।“মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য”। আপনারা শুধু মানুষের ভুলগুলো দেখে বিচার করবেন না, মানুষ কেন অপরাধী হয় এর কারণ কি?। অপরাধী হয়ে কেউ জন্মগ্রহণ করেন না। মানুষ অপরাধ কেন করে? অপরাধ সৃষ্টি বা অপরাধে জড়িত করছে কারা ? উক্ত ৪টি বিষয় চিন্তা করা দরকার যেমন ঃ জনপ্রতিনিধি, পুলিশ, আইনজীবি ও সাংবাদিকগণ-দেশে কারা অপরাধী আর কারা অপরাধী নয় ? প্রিয় পাঠক আজ আমার কোনো নিজের কথা বলছি না, আমার ভুল হলে ক্ষমা করবেন আর মানুষের শিক্ষার শেষ নেই। তাই যারা হয়ত সংবাপত্রে কাজ করেন, তারা যদি মনে করেন যে, আপনাদের কিছু শিখার দরকার তাহলে আমরা এ বিষয়ে আপনাদেরকে সহযোগিতা করতে চাই, আর আপনাদের সকলের সহযোগিতা আমাদের জন্য খুবই দরকার। বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের অনেক সহযোগিতা করতেছেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই। আপনারা শুধু অন্যের ভুল ও দোষ খোঁজে বেড়াবেন না, আপনাদের নিজ নিজ এলাকার জনপ্রতিনিধিদের উন্নয়নমূলক কাজের সংবাদ প্রকাশ করবেন। এতে সবাই সাংবাদিকদেরকে সম্মান করবে। সেবাই মানুষের ধর্ম। সাংবাদিক শব্দের অনেক অর্থ, সাংবাদিক শব্দ সহজ হলেও এটি মহৎ পেশা। সাংবাদিকতা খুবই কঠিন কাজ। পুলিশের হাতিয়ার আছে, আর সাংবাদিকদের অস্ত্র হলো কলম, আর কলম সৈনিকরা কখনো কারো ভয় করে না।
বিশেষ করে সংবাদের উৎসহের মত সংবাদের উপাদান কি ? মানুষ এবং প্রকৃতি। যেমনঃ মানুষের আশা-আকাঙ্খা, আনন্দ, বেদনা, সুখ-দুঃখ, সমস্যা ও সম্ভাবনাই সংবাদের মূল প্রতিপাদ্য।এর সাথে সম্পৃক্ত সকল বিষয়ই সংবাদের উপাদান। আর কুকুর যদি মানুষকে কামড়ায় তা কোনো সংবাদ নয়, তেমনি মানুষ যদি অপ্রত্যাশিত কিছু করেন তা সংবাদ হয়। যেমন ঃ নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটনা, অন্যায় অভিচার করা, যা মানুষের অধিকারকে হরণ করে এরকম অনেক বিষয়কে সংবাদ বলা যেতে পারে। প্রিয় পাঠকগণ আমার লেখাগুলোর কোনো ভুল হলে ক্ষমা করবেন, কাউকে আঘাত করা আমার কাজ নয়, কেউ আমার ব্যক্তিগত শক্র নয় যে, আমি তার বিচার চাইবো। কিছু শিক্ষা বা কিছু জানার অধিকার আছে সবার। উক্ত বিষয়ে ভালো লাগলে লাইক করুন, শেয়ার ও কমেন্ট করার অনুরোধ রইলো, ধন্যবাদ। আমার প্রশ্নঃ সাংবাদিকদের বেলায় যত শর্ত ও নিয়ম তৈরি করা হচ্ছে কেন ? কোথায় সাংবাদিকদের প্রকৃত স্বাধীনতা ? সাংবাদিকদের বেতন ভাতা দিচ্ছে না সরকার, কিন্ত সাংবাদিকদের স্বাধীনতা হরণ করে নতুন নতুন আইন পাস করা হচ্ছে। যা অন্যদের বেলায় এমন আইন তৈরি করা হচ্ছে না বলে সকলের অভিমত প্রকাশ করবেন মর্মে প্রত্যাশা করছি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here