মেঘনার পাড়ের জেলেদের মানবেতর জীবন যাপন!

188

 মোঃ শফিকুল ইসলাম বাবু: দ্বীপ জেলা ভোলার দৌলতখান মেঘনার ইলিশা থেকে চরপিয়াল পর্যন্ত ৯০ কিঃমিঃ এলাকায় জাটকা সহ সকল প্রকার মাছ ধরা দুই মাসের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে বাংলাদেশ সরকারের মৎস বিভাগ। উক্ত সময়ে এ সকল এলাকায় সকল জাল ফেলা,  মাছ ধরা, ক্রয় বিক্রয়,  পরিবহন ও মজুদে সম্পুর্ন ভাবে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। যার ফলে মেঘনার পাড়ে নিবন্ধন কৃত ২১ হাজার জেলে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এ সকল কর্মহীন জেলেদের খাদ্য সহায়তা পূরণ করতে বাংলাদেশ সরকার নিজ উদ্যোগে ভিজিএফ এর চাল বরাদ্দ চালু করেন। এদিকে গত ১ মাস জেলেরা মাছ ধরা বন্ধ রাখলে ও বরাদ্দকৃত উক্ত চাল কারো হাতে পৌঁছায়নি। উপজেলায় ৯ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভায় ৮ হাজার ২ শত ২০ জন জেলে পরিবারকে ভিজিএফ এর মাধ্যমে ৪০ কেজি করে দুই মাসে ৮০ কেজি চাল দেওয়ার কথা থাকলেও শুধুমাত্র হাজিপুর ও চরপাতা ইউনিয়নে ১ মাসের চাল বিতরণ করে। বাকী ৭ টি ইউনিয়নের মধ্যে এখন পর্যন্ত চাল বিতরণ করা হয় নি। উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ৬,৭ নং ওয়ার্ডের জেলে রফিকুল ইসলাম ও সেলিম জানান, আমারা নদীতে গেলে পুলিশ ধরে জেলে দেয়,  না গেলে পরিবারের লোকজন না খেয়ে কষ্ট পায়। সরকার নাকি আমাগো লইগ্যা চাউলের বরাদ্দ করছে কিন্তু এহন পর্যন্ত কেউই আমাদের কিছু দেয় নায়।
তাই আমাদের জীবন যাপন করতে বহুত সমস্যা হচ্ছে।আমরা যাতে কইরা আমাগো বরাদ্দকৃত চাউল তাড়াতাড়ি পাইতো পারি তার ব্যাবস্হা করার জন্য তারা অনুরোধ জানান।