মুহুরী নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনে হুমকির মুখে বসত বাড়ী ও রাস্তাঘাট

129

মোঃ শাহ ফয়সাল :  মুহুরী নদীটি ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পার্বত্য অঞ্চলে উৎপন্ন হয়ে সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে এবং পাহাড়ী অঞ্চল দিয়ে ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলা হয়ে ফেনী নদীর সাথে মিলিত হয়ে বঙ্গোপসাগরে পতিত হয়েছে। মাঝে ছাগলনাইয়া উপজেলার ৬নং পাঠাননগর ইউনিয়নের (রেজুমিয়া ব্রীজের পশ্চিম পার্শ্ব দিয়ে দক্ষিণ দিকে) পূর্ব বাথানিয়া গ্রামে নদীর কুল ঘেষে সনাতন ধর্মাবল্বী হিন্দু সম্প্রদায় দীর্ঘকাল যাবত কয়েকটি বাড়ী নির্মাণ করে পূর্ব পুরুশানুক্রমে নদীতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতো। মুহুরী নদীটি খরস্রোতা হওয়ায় বর্ষাকালে নদীর পানি ফুলে ফেঁপে উঠে। অনেক সময় নদীর আশেপাশের বাড়ী ঘর পর্যন্ত পানিতে ডুবে যায়। বিগত কয়েক বছর যাবত নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনে অনেক পরিবারের বসত বাড়ী ঘর নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। যার ফলে কিছু কিছু হিন্দু পরিবার অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হয়েছে। তাছাড়া নদীতেও আগের মত মাছ ধরা ও কোন আয় না থাকায় পেশাপরিবর্তন করেছে অনেক হিন্দু। কয়েকটি পরিবার রয়েছে, যাহাদের অন্য দিকে যাওয়ার কোন অর্থবিত্ত নেই। বর্তমানে সেপাল দাস, রাখার দাস, নারায়ন চন্দ্র দাস, বাবুল দাস, পবিত্র দাস, সুজন চন্দ্র দাস, খগেন্দ্র দাস ও হৃদয় দাসের পরিবার মানবেতর দিন যাপন করছে এবং ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার সমূহ নদীর ভাঙন রোধের ব্যবস্থা করণ এবং পরিবার সমূহকে পুনর্বাসনের জন্য ০৯ ফেব্রুয়ারী ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং ফেনী পানি উন্নয়ন বোর্ড বরাবরে লিখিত আবেদন জানিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here