করোনায় মৃত হিন্দু যুবকের লাশ সৎকার করলো মুসলিম যুবকেরা

273

কালজয়ী ডেস্ক:   কুমিল্লার  মুরাদনগরে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া এক ইউপি সচিবের লাশ সৎকার করতে পুরোহিত ও এলাকাবাসীর কেউ এগিয়ে আসেনি। অবশেষে সৎকার করল মুরাদনগর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ। উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে শুক্রবার রাত  ৯ টায় প্রদীপ চন্দ্র সূত্রধর (৩৬) নামের এক ইউপি সচিবের মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার রামচন্দ্রপুর দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সচিব ছিলেন। মৃত ব্যক্তির লাশ সৎকার করতে উপজেলা নির্পুবাহী অফিসার অভিষেক দাস স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, এলাকার ব্যক্তিবর্গ,পূজা উদযাপন কমিটি ও পুরোহিদদের সাথে কথা বললে তারা প্রথমে রাজি হলেও পরে লাশ সৎকার করে অস্বীকৃতি জানায়।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিষেক দাস উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক রুহুল আমিনের সহযোগিতা চায়। সে প্রেক্ষিতে নির্বাহী অফিসার  অভিষেক দাসের উপস্থিতিতে রুহুল আমিনের নেতৃত্বে যুবলীগের  টিম শনিবার দুপুরে মৃত ব্যাক্তির সৎকার কাজ সম্পন্ন করেন। জানা যায়, আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন এফসিএ’র নির্দেশনায় করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরুর থেকেই কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের দাফনের জন্য উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে ১১জন সদস্যের একটি কমিটির ঘোষণা দেন উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক মোঃ রুহুল আমিন।

হিন্দু যুবকের লাশ মুসলিম যুবকরা সৎকার প্রসঙ্গে উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত হবায়ক ও দাফন কাফন কমিটির প্রধান রুহুল আমিনের কাছে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে,সে জানায় তার কাছে কে কোন ধর্মের সেটা মুখ্য বিষয় নয়,মূখ্য হচ্ছে সে একজন মানুষ। বৈশ্বিক এই মহামারিতে আমরা সকল মানুষের পাশে থাকতে পেরে নিজেদেরকে ধন্য মনে করছি। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলো মাহবুবুল আলম মামুন, মোমেন সরকার, হাফেজ ইব্রাহিম, নাজমুল হাসান, সোহেল,ইয়াছিন আরাফাত বাবু, আলাউদ্দিন বেপারী, নাছির হোসেন, রেজাউল করিম, আক্তার হোসেন।