ঠাকুরগাঁওয়ে করোনায় মৃত্যু ১, শিশু ও স্বাস্থ্যবিভাগের সহকারীসহ নতুন আক্রান্ত ২৫ !

45

মোঃ জাহিদ হাসান মিলু: ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ল্যাবরেটরি মেডিসিন এন্ড রেফারেল সেন্টার, শের-ই-বাংলা নগর ঢাকা এবং দিনাজপুর এম আব্দুর রহমি মেডিকেল কলেজ হতে প্রাপ্ত সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) ১ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং শিশু ও স্বাস্থ্যবিভাগের সহকারীসহ নতুন ২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০৯ জনে। শনিবার (৩০ মে) রাতে ঠাকুরগাঁওয়ের সিভিল সার্জন ডা. হফুজার রহামান সরকার এ খবর নিশ্চিত করেন। সিভিল সার্জন ডা. মাহফুজার রহামান সরকার জানান, সর্বশেষ রির্পোট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় আজ নতুন করে ২৫ জনের শরীরে করেনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। মৃত্যু হয়েছে ১ জনের এবং এপর্যন্ত সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছে ২৪। আক্রন্তরা জেলার সদর উপজেলায় ১১ জন, বালিয়াডাঙ্গীতে ২ জন, পীরগঞ্জের ৪ জন, রাণীশংকৈলে ৫ জন এবং হরিপুরের ৩ জন । মোট আজ নতুন ২৫ জনের করোনা পজেটিভ রির্পোট পাওয়া গেছে। এপর্যন্ত জেলা মোট আক্রান্তের ১০৯ জনের মধ্যে ২৪ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন মৃত্যু হয়েছে ১ জনের ।

সদর উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ১। সদর উপজেলার পুরাতন বাস স্ট্যান্ড ১ নং ওয়ার্ডের মৃত একে এম তমিজউদ্দিনের স্ত্রী হাজেরা বেগম (৬০), ২। পুরাতন বাস স্ট্যান্ড ১ নং ওয়ার্ডের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে মতিউর রহমান (৩৬), ৩। একই এলাকার মতিউর রহমানের স্ত্রী তানজিলা পারভিন (৩২), ৪। মতিউর রহমানের ছেলে শিশু আরিফ (৮) ও ৫। শিশু তৌউফা (৩), ৬। সালন্দর ডেনিস পাড়ার নাসরিন আক্তার (২৬), ৭। সালন্দর ডেনিস পাড়ার শফিকুল ইসলাম (৩২), ৮। পুলিশ লাইনের নাওরিন জাহান (২০), ৯। পূর্ব গোয়াল পাড়ার মৃত সুফিয়ানের ছেলে শাহিন হোসেন (২২), ১০। রহিমানপুরের নূও আলীর স্ত্রী চম্পা বেগম (২৫), ১১। হরিহরপুরের আল মামুনের স্ত্রী জেসমিন আক্তার (৩৬)।

পীরগঞ্জ উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ১২। পীরগঞ্জ উপজেলার হাজীপুর একান্নপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে মোজাম্মেল (৩২), ও ১৩। মোজাম্মেল এর স্ত্রী রুনা লায়লা (২৯), ১৪। পীরগঞ্জ পৌরসভার মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে মাইনুল ইসলাম (২৯), ১৫। পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও প্রধান সহকারী মাইজুল হক (৫০)। বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ১৬। পাড়িয়ার বেল ইসলামের স্ত্রী সুজি বেগম (৫৭), ১৭। জতপাড়ার নির্মল রায়ের ছেলে অজয় কুমার রায় (২৬), তিনি
নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে গার্মেন্টস এ কাজ করতেন, তিনি গত ২০ মে বাড়িতে আসেন। রাণীশংকৈল উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ১৮। রাণীশংকৈল দুর্লভপুর গ্রামের মৃত রহিম উদ্দিনের ছেলে মুসলিমউদ্দনি (৪৮), তিনি নারায়নগঞ্জ জেলার রূপপুরে গার্মেন্টস এ কাজ করতেন। তিনি গত ২৪ মে বাড়িতে আসেন, ১৯। চাপড়াপার্বতীপুর লাল মিয়ার স্ত্রী চেন বানু (২৬) তিনি গাজীপুরের বড়বাড়িতে গার্মেন্টস এ কাজ করতেন, তিনি গত ২৬ মে বাড়িতে আসেন, ২০। লেহেম্বা উইনিয়নের ভূপেনের মেয়ে জ্যোতি বালা (১৭) তিনি নরসিংদীর মাধবদীতে গার্মেন্টস এ কাজ করতেন, তিনি গত ২৪ মে বাড়িতে আসেন, ২১।বাশরাইল গ্রামের আশরাফুল ইসলাম (২৫) এবং ২২। ভান্ডারা গ্রামের ঢাকা ফেরত মৃত কালা মিয়ার স্ত্রী মৃত আমেনা বেগম (৮০) তিনি ছিছু দিন আগে মৃত্যুবরণ করেন এবং তার সংগ্রহীত নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এ করোনা পজেটিভ এসেছে। এবং হরিপুর উপজেলায় আক্রান্তরা হলেন, ২৩। হরিপুর উপজেলার হরমপুর গ্রামের অজিত রায়ের মেয়ে প্রীতি (১৬) সে নরসিংদী জেলার মাধবদীতে গার্মেন্টসে চাকুরি করতেন গত ২৩ মে বাড়িতে আসে সে, ২৪। আমগাঁও কালচা কামারপুর গ্রামের রোহিতের মেয়ে ময়ূরী (১২) এবং ২৫। আটঘরিয়া বহরমপুরের আমিনুল ইসলামের ছেছে হীরা (১৮)। মোট এ পর্যন্ত জেলা করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০৯ সুস্থ ২৪ এবং মৃত্যু হয়েছে ১ জনের।