বেতন চাওয়ায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধি কর্মচারীর শরীর খুন্তি ও পাইপ দিয়ে পুড়িয়ে দিলো মালিক

91

বিপ্লব আহমেদ :: ফরিদপুরের মধুখালী মরিচ বাজারে বেতন চাওয়ায় এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী দোকান কর্মচারীর শরীর গরম খুন্তি ও গরম পাইপ দিয়ে শরীর পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে দোকান মালিকের বিরুদ্ধে। গতকাল শুক্রবার বিকেল ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই দোকান কর্মচারী তাপসকে মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান (পিপিএম সেবা) আহত তাপসকে দেখতে শনিবার দুপুরে মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। জানা গেছে, বোয়ালমারী উপজেলার ঘোষপুর ইউনিয়নের কান্দাকুল গ্রামের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তাপস প্রায় ১ বছর ধরে মরিচ বাজারের বিপ্লব সাহার চা ও মুদি দোকানে কাজ করে আসছে। তাকে শুধু খাবারই দেয়া হতো। কোন বেতন দিতো না দোকান মালিক।

গত কয়েকমাস যাবত তাপস দোকান মালিকের নিকট বেতন চাইছিলো। একারণে শুক্রবার সকালে তাপসকে মারধর করা হয়। এরপর সন্ধা ৬ টার দিকে গরম খুন্তি ও স্টিলের গরম পাইপ দিয়ে শরীরের ঘাড়ে, হাতে ও পিঠে পুড়িয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে সন্ধা সাড়ে ৬ টার দিকে পুলিশ বিপ্লব সাহার বাবা বিমল সাহা ও তার ছোট ছেলে পলাশকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। রাতে তাপসকে মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. কবির সরদার জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর তাপসের শরীরে হঠাৎ রক্তক্ষরণ হয়।

শনিবার সকালে তার শরীরে এক ব্যাগ রক্ত পুশ করা হয়েছে।মধুখালী থানার অফিসার্স ইন চার্জ মো. আমিনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা একটি দায়ের করা হয়েছে। ওই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রথন্দ্রনাথ জানান, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। দুপুরে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান হাসপাতালে আহত তাপসকে দেখতে যান।