ঠাকুরগাঁওয়ে নতুন করোনা শনাক্ত ১৭,মোট ৮৪,সুস্থ ২৩

123


মোঃ জাহিদ হাসান মিলু: ঠাকুরগাঁওয়ে উপজেলা কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মী ও বেসরকারী এনজিওর ব্রাঞ্চ ম্যানেজরসহ নতুন করে আরও ১৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে ও এপর্যন্ত জেলায় করেনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৪ জনে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) রাতে ঠাকুরগাঁওয়ের সিভিল সার্জন ডা. মাহফুজার রহামান সরকার এ খবর নিশ্চিত করেন।

সিভিল সার্জন ডা. মাহফুজার রহামান সরকার জানান, দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হতে সর্বশেষ রির্পোট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় আজ নতুন করে ১৭ জনের শরীরে করেনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। আক্রন্তরা জেলার সদর উপজেলায় ২ জন, বালিয়াডাঙ্গীতে ৯ জন, পীরগঞ্জের ৩ জন, রাণীশংকৈলে ১ জন এবং হরিপুরের ২ জন । মোট আজ নতুন ১৭ জনের করোনা পজেটিভ রির্পোট পাওয়া গেছে। এপর্যন্ত জেলা মোট আক্রান্তের ৮৪ জনের মধ্যে ২৩ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন ।

সদর উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ১। সদর উপজেলার আখানগর উইনিয়নের মহেশপুর কালিবাড়ি গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে রাকিব রানা (২৬)। তিনি নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে গার্মেন্টস এ চাকুরি করতেন। তিনি গত ১৩ মে গ্রামের বাড়িতে আসেন। ২। সদর উপজেলার আখানগর উইনিয়নের মহেশপুর কালিবাড়ি গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে সাহিদ আলম (২৮)। তিনিও নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে গার্মেন্টস এ চাকুরি করতেন। একই দিনেই তিনিও গ্রামের বাড়িতে আসেন।

পীরগঞ্জ উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ৩। পীরগঞ্জ উপজেলার কোষা রাণীগঞ্জ আকালীশ গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে মুজিবুল ইসলাম (৪০)। তিনি চট্টগ্রামে গার্মেন্টস এ চাকুরি করতেন। তিনি গত ২৩ মে গ্রামের বাড়িতে আসেন। ৪। জাবরহাট বিদ্রিগাও গ্রামের বদরুলের স্ত্রী নাসিমা বেগম (২৮) তিনি গাজীপুর জেলায় চাকুরির জন্য গিয়েছিলেন কিন্তু চাকুরি না পেয়ে গত ১৯ মে বাড়িতে ফিরে আসেন তিনি। ৫। ভাবুয়া গ্রামের খোরশেদ আলীর ছেলে হাফিজ উদ্দিন (৩৪) তিনি পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজি ল্যাবে কর্মরত থেকে করোনার নমুনা সংগ্রহের কাজ করতেন।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আক্রান্তরা হলেন, ৬। ছোট লাহিড়ী গ্রামের দুলাল মিয়া (৩০) ও ৭। তার স্ত্রী মর্জিনা বেগম (২৬)। ৮। বড় পলাশবাড়ীর বেলাল হোসেন (২৫) ও ৯। তার স্ত্রী রিনা আক্তার (২১)। ১০। একই গ্রামের সমির উদ্দিনের মেয়ে রাবেয়া আক্তার (১৭), ১১। সোহারাব আলীর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (১৯), ১২। মঈনউদ্দীনের ছেলে ওমর আলী (২৭), ১৩। আমজানখোর ইউনিয়নের কসোদা চন্দ্র রায়ের ছেলে দীপক চন্দ্র রায়(২২), ১৪। পিচাইচাড়ি গ্রামের মৃত জোবায়দুর রহমান এর ছেলে হারুন-অর-রশিদ (৩৮)।

রাণীংশকৈল উপজেলার আক্রন্তরা হলেন, ১৫। বাশবাড়ি গ্রামের আমান উল্লাহর ছেলে মাহবুব আলম (২২)। এবং হরিপুর উপজেলায় আক্রন্তরা হলেন, ১৬। ৫ নং হরিপুর ইউনিয়নের আইয়ুব আলীর ছেলে আতিকুর রহমান বাবুল (৩৬), তিনি নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর ইএসডিও’র ব্রাঞ্চ ম্যানেজার। তিনি গত ২০ মে বাড়িতে আসেন, এবং ১৭। ৬ নং ভাতুরিয়া ইউনিয়নের কচুয়া কাঁঠাল ডাঙ্গী ভবানীপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে ওয়াহিদুর রহমান জনি (২৭)।

ঠাকুরগাঁও জেলার কোভিড-১৯ এর সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় প্রেরিত মোট নমুনার সংখ্যা ৬৮ এপর্যন্ত মোট প্রেরিত নমুনার সংখ্যা ১ হাজার ১৪৫০।