মোংলায় ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ

129
ওয়াসিম আরমান:  অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ, কোস্ট গার্ড, বন বিভাগ, মোংলাপোর্ট পৌরসভা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। আজ১৮ মে সোমবারের আবহাওয়া অফিসের সর্বশেষ খবর অনুযায়ি মোংলা সমুদ্র বন্দরকে ৭নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।
মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাষ্টার কমান্ডার ফকরউদ্দিন জানান ১৮ মে সোমবার বিকেল ৪টায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষথর সম্মেলন কক্ষে বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহজানের সভাপতিত্বে ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বন্দর কর্তৃপক্ষথর সকল বিভাগীয় প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বন্দরের নিজস্ব রেড এলার্ট-৩ জারি করা হয়েছে। বন্দরে বর্তমানে ১১টি বাণিজ্যিক জাহাজ আছে। এছাড়া কোস্ট গার্ড-নেভীর জাহাজ আছে। বন্দরের বহিনোর্ঙ্গরে পন্য উঠা-নামার কাজ বন্ধ আছে। বন্দর জেটিতে সীমিত পরিসরে পন্য-উঠানামা চলছে। বন্দর কর্তৃপক্ষের দুটি কন্ট্রোল রুম চালু রয়েছে। অন্যদিকে সোমবার বিকেল ৫টায় উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার। সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রাহাত মান্নান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ নাহিদুজ্জামানসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক ১০৩ টি স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার স্যানিটাইজ করে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে যার নম্বর ০৪৬৫৮-৭৩৩৩৬। সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগ বাগেরহাটের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ বেলায়েত হোসেন জানান তাদের কর্মকর্তাদের নিরাপদে থাকতে বলা হয়েছে। সুন্দরবনের জেলেদের নিরাপদে আশ্রয় গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের পক্ষ থেকেও সুন্দরবনে মাইকিং করে জেলেদের নিরাপদে থাকতে বলা হয়েছে এবং কোস্ট গার্ডের ষ্টেশন অফিস গুলিকে সাইক্লোন শেল্টার হিসেবে খোলা রাখা আছে। এছাড়া মোংলা পোর্ট পৌরসভার মেয়র মোঃ জুলফিকার আলী জানান পৌরসভার কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে এবং জনসাধারণের জন্য সচেতনতামূলক মাইকিং করা হচ্ছে। পৌর এলাকার সাইক্লোন শেল্টার গুলি প্রস্তুত রাখা হয়েছে।