বানারীপাড়ায় বাদী’কে ফাঁসাতে নিজ ঘরে আগুন দেওয়ার অভিযোগ

338

মোঘল সুমন শাফকাত: বানারীপাড়ায় অবৈধভাবে চালানো ডকইয়ার্ড বন্ধ করার অভিযোগকারীদের ফাঁসাতে পরিকল্পিতভাবে অগ্নি সংযোগ করার অভিযোগ উঠেছে। জানাগেছে উপজেলার তেতলা গ্রামের বগাইবাড়িতে পিতৃ সম্পত্তিতে কয়েক যুগ যাবৎ বসবাস করে আসছেন মোঃ রাসেল আহমেদ গং এবং মা-বাবার দোয়া নামক ডকইয়ার্ডের মালিক মহসিন গং। ঘটনার সূত্রপাত, চলতি বছরের ০৭ মে মোঃ রাসেল আহমেদ, মোঃ মামুন বেপারি, মোঃ শাহজালাল বেপারী, মোঃ শাহদাৎ হোসেন হাওলাদার, মোঃ শাহআলম বেপারি, মোঃ সোহেল রানা ও মোঃ রাসেল আহমেদ বিরোধীয় সম্পত্তিতে অবৈধভাবে চালানো ডকইয়ার্ড বন্ধ করার জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেয়। পরে অভিযোগের ভিত্তিতে ৯ মে দুপুর ১.০০ টায় বানারীপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অনুপ দাস এর নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয় পরিবেশ দূষণকারী অবৈধভাবে পরিচালিত মা-বাবার দোয়া ডকইয়ার্ডে। সেখানে তাদের (মহসিন) জরিমানা সহ ডকইয়ার্ড বন্ধ ঘোষনা করে যাওয়ার পর ক্ষুব্ধ হয়ে অভিযোগকারীদের কুপিয়ে জখম করা সহ মেরে ফেলার হুমকি দেয় ডক মালিক মোঃ মহসিন হোসেনের ভাই মোঃ সাইফুল ইসলাম সুমন। এঘটনায় তারা (রাসেল গং) ১০ মে বানারীপাড়া থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরী করেন।

এ খবর জানার পরে রাসেল গংদের উপর ক্ষিপ্ত হয় মহসিন ও তার ভাইয়েরা। এরই ধারাবাইহকতায় পরবর্তীতে ১৪/০৫/২০ তারিখ দিবাগত রাত আনুমানিক ১.৩০ টায় ডকইয়ার্ডের ভেতরে থাকা ঘরটিতে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় রাসেল ও তাদের লোকজন। এসময় তারা দেখতে পান কিছু লোক আগুন নেভানোর চেষ্টা না করে তা মোবাইলফোনে ভিডিও ধারণ করছে। এবস্থায় তারা দিশেহারা হয়ে থানার অফিসার ইনচার্জেকে বিষয়টি অবহিত করলে ভোররাতে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে আসেন। পরে স্থানীয়দের সহযোগীতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। এ বিষয়ে হয়রানীর স্বীকার মোঃ রাসেল জানান, ডকইয়ার্ড মালিক মহসিন ও তার ভাইয়েরা গত বছর সাংবাদিকদের ভুল তথ্য দিয়ে তাদের নামে উদ্যেশ্যমূলক ভাবে মিথ্যা হয়রানিমূলক চাঁদাবাজ ও জুয়াড়ী অপবাদ দিয়ে পত্রিকায় মিথ্যা প্রচার চালায়। এ অবস্থায় ভবিষ্যতে এর চেয়েও ভয়ংকর ও জঘন্য কাজের পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সে জন্য প্রশাসনের সঠিক তদন্ত কামনা করছেন হযরানীর সিকার মোঃ রাসেল আহামেদ গংরা। এদিকে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে অগ্নি সংযোগের এমন ন্যাক্কার জনক ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী।