আওয়ামী লীগের সাথে সমন্বয় করে ত্রাণ বিতরণ কমিটি করার নির্দেশ কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের 

171

মোঃ রাকিবুজ্জামান(গাজী বিপ্লব): আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা এমপি’র নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক একেএম আফজালুর রহমান বাবু সংগঠনের প্রতিটি জেলা ও মহানগর কমিটির সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক,আহবায়ক,যুগ্ম আহবায়ক,সদস্য সচিবকে অতিদ্রুত নিম্নোক্ত কার্যক্রম গ্রহণ করার জন্য বিশেষভাবে আহবান জানিয়েছেন ।

আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সকল উপজেলা,থানার নেতৃবৃন্দ ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত স্থানীয় আওয়ামী লীগের সাথে সমন্বয় করে ত্রাণ কমিটি গঠন করে সংশ্লিষ্ট সাংগঠনিক জেলা শাখায় জমা দিতে হবে।

নির্মল রঞ্জন গুহ দৈনিক কালজয়ীকে বলেন, এই ত্রাণ কমিটি স্থানীয় প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে ওয়ার্ড পর্যায়ে দল-মত নির্বিশেষে প্রকৃত দরিদ্র, দুস্থ ও অসহায় মানুষের তালিকা প্রস্তুত করবে, একই সাথে মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণে সৃষ্ট মানবিক সংকটে আর্থিক সহযোগিতা ও ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌছে দিতে স্থানীয় প্রশাসনকে সর্বাত্নক সহযোগিতা করবে ।

নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকল দুর্যোগে মানুষের পাশে ছিলেন, বর্তমানে আছেন, আগামীতেও থাকবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকতে কোনো মানুষ না খেয়ে কষ্ট পায় না। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে করোনা দুর্যোগেও দলের প্রতিটি নেতাকর্মী মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে স্বাধ্যমত কাজ করে চলছে।তাই ধৈর্য দায়িত্বশীলতা ও দেশপ্রেম নিয়ে একযোগে সবাইকে এই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, করোনা প্রতিরোধে সচেতনতার বিকল্প নাই। একমাত্র সচেতনতাই পারে করোনা ভাইরাসকে প্রতিহত করতে। অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে যাওয়া যাবে না। আর যারা প্রবাস ফেরত তাদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে হবে। সবাইকে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

একেএম আফজালুর রহমান বাবু কালজয়ীকে বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশ ও জনগণের জন্য তিনি নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে এই ভাইরাসের সম্ভাব্য বিস্তার রোধে সরকার জরুরি সেবা ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের উৎপাদন ব্যাতীত সকল অফিস আদালত এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করেছে, সকল ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ করেছে এবং জনসাধারণকে অতি জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত বাসায় অবস্থানের নির্দেশনা প্রদান করেছে। এ প্রেক্ষিতে, চরম মাত্রায় আক্রান্ত দেশ সমূহের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে যেকোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে যেমন কাজ করে যাচ্ছে, তেমনি সাধারণ ছুটি ঘোষণার ফলে নিম্ন আয়ের মানুষের ভোগান্তি রোধে নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। বিশেষত, দীর্ঘ ছুটির কারণে উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়া শ্রমজীবী মানুষের প্রয়োজন মেটাতে সরকার খাদ্য ও অর্থ সহায়তার পাশাপাশি বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচীর পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোও ব্যক্তি নিজ উদ্যোগে স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত উপকরণ সরবরাহ এবং নিম্ন আয়ের মানুষকে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানে এগিয়ে এসেছে।

তিনি আরো বলেন, সরকারের নির্দেশ মেনে চলুন, করোনা ভাইরাস এর হাত থেকে রক্ষা পেতে ঘরে থাকুন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নির্দেশাবলী মেনে চলুন, সেনাবাহিনী ,পুলিশ এবং আমরা সমন্বয় করে কাজ করছি তাই বিনা প্রয়োজনে কেউ বাইরে যাবেন না, সবাই ঘরে থাকুন । নিরাপদে থাকুন।

করোনা সংক্রান্ত জরুরী যে কোন স্বাস্থ্য সেবা পেতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের “টেলি হেলথ্ সার্ভিস 09611999777 ” নম্বরে ফোন করে প্রয়োজনীয় পরামর্শ গ্রহন করার অনুরোধ জানিয়েছেন